যকৃতের রোগ ও যকৃত ক্যান্সারের অন্যতম প্রধান কারণ হেপাটাইটিস বি। এটিকে বিশ্বব্যাপী একটি নীরব মহামারিও বলা চলে। এটি একটি রক্তবাহিত সংক্রমণ, যা সাধারণত রক্ত এবং যৌন সম্পর্কের মাধ্যমে ছড়িয়ে থাকে।

এ লেখায় হেপাটাইটিস বি, দাঁতের ডাক্তার ও রোগীর মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে  আলোচনা করছি।

আপনি যখন দাঁতের ডাক্তারের কাছে যান, তখন সব সময় চিকিৎসককে আপনার অন্যান্য রোগ ও চিকিৎসা পরিস্থিতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবেন। যদি আপনার হেপাটাইটিস থাকে তাহলে তা কখনোই লুকাবেন না। কারণ এই রোগটি আপনার জন্য যেমন ক্ষতিকর, তেমনি চিকিৎসকের জন্যও। ডেন্টাল ক্লিনিকে হেপাটাইটিসের ঝুঁকি রয়েছে। কারণ এটি বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই রক্তের মাধ্যমে ছড়ায়। যখন একজন চিকিৎসক আপনার দাঁতের চিকিৎসা শুরু করেন, তখন হেপাটাইটিস বি’র ঝুঁকিও বাড়তে পারে। চিকিৎসা শুরুর সময় সঠিকভাবে সবকিছু জীবাণুমুক্ত করা হচ্ছে কিনা তা জানা গুরুত্বপূর্ণ।

বেশ কিছু গবেষণায় দেখা গেছে, পেশাগত কারণেই ডেন্টিস্টদের হেপাটাইটিস বি রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অন্য নাগরিকদের তুলনায় ১০ গুণ বেশি। ফলে কর্মরত সব স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী ও রোগীদের হেপাটাইটিসে আক্রান্ত হওয়া থেকে রক্ষা পেতে টিকা দেওয়া নিশ্চিত করতে হবে। হেপাটাইটিস বি ভ্যাকসিন নিরাপদ ও কার্যকর এবং আজীবন সেটি সুরক্ষা প্রদান করে। দাঁতের চিকিৎসায় ক্লিনিকে সাধারণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার মাধ্যমেও হেপাটাইটিস বি সংক্রমণ প্রতিরোধ করা যেতে পারে।

ডেন্টাল ক্লিনিকে যথাযথভাবে ও নিয়মিত সরঞ্জাম জীবাণুমুক্ত করা এবং সাধারণ সব সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত। যেমন–  সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম পরা এবং প্রতিটি রোগীর ব্যবহৃত সরঞ্জামগুলো জীবাণুমুক্ত করা। পাশাপাশি দায়িত্বরত কর্মীরা নিশ্চিত করবেন, সঠিকভাবে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। যেন আপনি কোনোভাবেই সংক্রমিত না হন। যে চেয়ারে বসে আপনার চিকিৎসা শুরু হবে, সে চেয়ারে বসার আগে নিশ্চিত হতে হবে, আপনার আগে যে রোগী সেখানে বসেছিলেন, সেই চেয়ার ও মেঝে সঠিকভাবে পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে কিনা। কোনো দৃশ্যমান রক্ত বা লালা আছে কিনা, কাজ শুরুর আগে চিকিৎসককে জিজ্ঞাসা করুন, সরঞ্জামাদি সঠিকভাবে জীবাণুমুক্ত করা হয়েছে কিনা। নিশ্চিত করুন, আপনার চিকিৎসক নতুন গ্লাভস, সার্জিক্যাল মাস্ক ও অন্যান্য প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা পরেছেন কিনা। চিকিৎসা করার আগে আপনার দাঁতের ডাক্তার হাত ধুয়েছেন কিনা, তাও নিশ্চিত করতে দ্বিধা করবেন না। ইনস্ট্রুমেন্টেশন বা পয়েন্টেড সুচ ব্যবহার করার সময় আপনার ডেন্টিস্টকে জিজ্ঞাসা করুন, সেসব প্রথমবারের মতো ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা। পাশাপাশি আপনাকেও কিছু বিষয় অবশ্যই মেনে চলতে হবে।

l হেপাটাইটিস থাকলেও আপনি জরুরি দাঁতের যত্ন পেতে পারেন, তবে দাঁতের নিয়মিত চেকআপ স্থগিত রাখুন। কারণ ক্রোনিক হেপাটাইটিস প্রায়ই শনাক্ত করা যায় না।

l লিভারের চিকিৎসায় পুরোপুরিভাবে যত্নশীল হোন। লিভার বা যকৃতের অসুখ আপনার মুখ গহ্বরের ভেতর অস্বস্তিকর অনুভূতি, মুখের ভেতরের বিভিন্ন অংশে সমস্যা এমনকি  মুখের ভেতরে ভয়ানক ইনফেকশন বা রোগের সংক্রমণ ঘটতে পারে।

l রক্তপাত এবং ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকে সাবধান থাকুন। যকৃত বা লিভারের রোগ আপনার শরীরের রক্ত জমাট বাঁধার ক্ষমতা হ্রাস করতে পারে। দাঁতের অপারেশন করার আগে অবশ্যই আপনার লিভার বিশেষজ্ঞের সঙ্গেও পরামর্শ করুন।

[প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান পরামর্শক, ডেন্টাল পিক্সেল এবং আকা  ফাউন্ডেশন]