রোগ প্রতিরোধ করে যেসব খাবার

প্রকাশ: ০৭ এপ্রিল ২০২০   

সায়মা আফরীন

রোগ মেকাবিলায় প্রতিনিয়ত এখন সংগ্রাম করতে হচ্ছে আমাদের। সারাদিন হাত ধোয়া। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা। ছোট্ট এক ভাইরাসের কাছে বিশ্ব এখন নত। তারপরও সতর্ক থাকতে হবে। সচেতন থাকতে হবে। যে খাবারগুলো আমাদের রোগ প্রতিরোধ করে নিয়মিত তা খেতে হবে। যেকোনো ভাইরাস হলো প্রোটিন যুক্ত অণুজীব, যার কারণে মানুষ জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্ট হতে পারে। এমনকি মারাত্মক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হতে পারেন যে কোনো ব্যক্তি। এই ভাইরাস ভয়ংকর প্রাণঘাতী রোগ তৈরি করতে পারে খুব সহজে। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য বেশি পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমৃদ্ধ খাবার রাখতে হবে আমাদের পাতে -এমনটাই বলেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের জৈষ্ঠ পুষ্টিবিদ আখতারুন নাহার আলো। 

তিনি জানান, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বলতে আমরা কী বুঝি? অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হলো কিছু ভিটামিন, মিনারেল ও এনজাইম, যা শরীরের ক্ষতিকর ফ্রি র্যা ডিকেলের বিরুদ্ধে লড়াই করে, ক্ষতির হাত থেকে বাঁচায় শরীরের কোষগুলোকে। মানুষের শরীরে জীবাণু সংক্রমণের ঝুঁকি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে। খাবারে প্রধান অ্যান্টিঅক্সিডেন্টগুলো হলো বিটা ক্যারোটিন, ভিটামিন এ, সি, ই, লাইকোপেন, লুটেইন সেলেনিয়াম ইত্যাদি।

বর্তমানে আমরা লড়ছি করোনাভাইরাসের সঙ্গে। করোনাভাইরাস ঠেকাতে যে খাবারগুলো পছন্দেরও তালিকায় রাখতে হবে তা হলো-

নানা রঙের সবজি ,উজ্জ্বল রংয়ের ফল, সবজি। এর মধ্যে গাজর, পালংশাক, আম, ডাল ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।

মিষ্টি আলু, মিষ্টিকুমড়া, গাজর, পালংশাক, জাম্বুরা, ডিম, কলিজা, দুধজাতীয় খাবার। অর্থ্যাৎ ভিটামিন এ জাতীয় খাবার। 

ভিটামিন ই: পেস্তাবাদাম, কাঠবাদাম, চিনাবাদাম, বাদাম তেল, বিচিজাতীয় ও ভেজিটেবল অয়েল, জলপাইয়ের আচার, সবুজ শাকসবজি ইত্যাদি।

প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি: আমলকী, লেবু, কমলা, সবুজ মরিচ, করলা ইত্যাদি খেতে হবে।

অন্যান্য খাবারের মধ্যে প্রাধান্য দিতে হবে পেপেঁকে। পেঁপেতে প্রচুর পেপেন এনজাইম আছে, যা মানুষের পাকস্থলীতে আমিষ হজমে সাহায্য করে। আরও আছে পটাশিয়াম, সোডিয়াম, ভিটামিন সি। 

যেসব খাবার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে অনন্য ভূমিকা রাখে, সেগুলোর একটি তালিকা দেওয়া হলো। এ খাবারগুলো আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে তো বাড়িয়ে তুলবেই, সেই সঙ্গে আরও বিভিন্নভাবে আপনার শরীরকে সুস্থ থাকতে সহায়তা করবে।

খেতে হবে প্রোটিন: প্রোটিন শরীরের অভ্যন্তরীন ক্ষমতা বাড়ায়। রোগের বিরুদ্ধে শরীরে শক্তি জোগায়। এই মৌসুমে শরীর সুস্থ রাখতে উন্নত মানের প্রোটিনযুক্ত খাবার খেতে হবে। ডিম, মাছ, মুরগির মাংস, ডাল থেকে পেতে পারেন প্রোটিন। তবে লাল মাংস উপেক্ষা করতে হবে। ভালো প্রোটিনের যে উপকার, লাল মাংসে তা পাওয়া যায় না। 

ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার: শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন সি খুবই কার্যকর। ভিটামিন সি মানবদেহের জন্য অতি প্রয়োজনীয় একটি মাইক্রো নিউট্রিয়েন্ট। ভিটামিন সি-ত্বক, দাঁত ও চুল ভালো রাখতে সাহায্য করে। পাশাপাশি এটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে, যা মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে হৃদরোগ, ক্যানসারসহ বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি হ্রাস করে। এই ভিটামিন পরিচিত ফল এবং বিভিন্ন শাকসবজি যেমন: জাম্বুরা, আমড়া, পেয়ারা, আমলকী, লেবু, কমলালেবু, পেয়ারা, পেঁপে, কাঁচা মরিচ ইত্যাদিতে প্রচুর পরিমাণে থাকে। 

ভিটামিন বি১২: শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ও রোগ থেকে খুব তাড়াতাড়ি সেরে উঠতে ভিটামিন বি ১২ খুব কার্যকর। বিভিন্ন দুগ্ধজাত খাবার ও ডিমে ভিটামিন বি ১২ পাওয়া যায়। তবে যারা নিরামিষাশী, তারা শরীরে ভিটামিন বি১২-এর অভাব পূরণে চিকিৎসকের পরামর্শমতো সম্পূরক নিতে পারেন।