জীবনযাত্রায় অনিয়মের কারণে আজকাল বেশিরভাগ মানুষকেই বদহজমের সমস্যায় ভুগতে দেখা যায়। কর্মব্যস্ততার জন্য অনেকে স্বাস্থ্যের প্রতি সঠিক যত্ন নেওয়ার সময় পান না। তাছাড়া খাওয়াদাওয়ার অনিয়ম, ঘুম ভালোভাবে না হওয়া, বেশি পরিমাণে ফাস্টফুড খাওয়া বা বিভিন্ন অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার ফলে বদহজম, গ্যাসের সমস্যা এখন নিত্যসঙ্গী হয়ে উঠেছে।

যারা ঘন ঘন বদহজম বা অ্যাসিডিটির সমস্যায় ভোগেন তারা সমস্যা নিরাময়ে ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। যেমন-

জোয়ান : বদহজম, গ্যাস, পেট ফাঁপা থেকে স্বস্তি পাওয়ার অত্যন্ত কার্যকরী ঘরোয়া প্রতিকার হল জোয়ান। একটি প্যানে এক চা চামচ জোয়ান ভেজে ঠান্ডা করুন। তারপর হালকা করে গুঁড়া করে তাতে এক চিমটি লবণ মিশিয়ে নিন। এটি পেটের ব্যথার জন্য খুবই কার্যকর। এটি গ্যাস থেকেও মুক্তি দেয়। এছাড়া, শুধু জোয়ান চিবিয়ে বা জোয়ান গুঁড়া পানির সঙ্গে মিশিয়েও পান করতে পারেন।

আদা : এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে আদা ছেঁচে দিন। এবার এতে এক চা চামচ মধুও মেশান। এই মিশ্রণটি বদহজমের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। বদহজমের সমস্য কমাতে অন্য ধরনের চায়েও আদা যোগ করতে পারেন। আদা মধুর সংমিশ্রণ অ্যাসিড রিফ্লাক্সের জন্য সেরা পানীয়!

লেবু ও মধু : এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে এক চা চামচ লেবুর রস যোগ করুন। তারপর তাতে এক চা চামচ মধুও মেশান। প্রতিবার খাবারের পরে এই পানীয়টি পান করুন। বদহজমের জন্য একটি কার্যকরী ঘরোয়া প্রতিকার।

ধনে বীজ
: ধনে বীজে থাকা অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান পেটের সমস্যা বা বদহজম থেকে মুক্তি দিতে পারে। পাশাপাশি হজম প্রক্রিয়াকে আরও ভালো করে। ধনে লিভারকে ডিটক্সিফাই করে, ক্ষুধা বাড়ায় এবং হজম প্রক্রিয়া ভাল রাখে। ভালো ফল পেতে এক সপ্তাহ ধনে বীজ মিশ্রিত পানি পান করুন।

অ্যাপেল সিডার ভিনেগার : অ্যাপেল সিডার ভিনেগার ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থের চমৎকার উৎস। এটি হজম প্রক্রিয়া ঠিক রাখতে সহায়তা করে। এক গ্লাস পানিতে মধুর সঙ্গে অ্যাপেল সিডার ভিনেগার দিয়ে পান করতে পারেন।