জনসাধারণকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, টিকা নেওয়ার পরও মানুষ করোনায় আক্রান্ত হতে পারেন। কিন্তু এতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। কারণ টিকা নেওয়ার পর কেউ করোনা আক্রান্ত হলে সেই সংক্রমণ হবে মৃদু। তার মৃত্যুঝুঁকিও থাকবে কম। অর্থাৎ টিকা মৃত্যুঝুঁকি কমানোর পাশাপাশি মারাত্মক সংক্রমণ থেকেও রক্ষা করবে। সুতরাং টিকার গুরুত্ব অপরিসীম।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও ভাইরোলজিস্ট অধ্যাপক ডা. নজরুল ইসলাম বৃহস্পতিবার সমকালকে বলেন, শরীরে করোনা সংক্রমিত হওয়ার পর কেউ টিকা নিলে সে ক্ষেত্রে তা কাজ নাও করতে পারে। কারণ করোনাভাইরাসের জীবাণু শরীরে প্রবেশের পর সেটির ক্রান্তিকাল ন্যূনতম ১৫ দিন। তার আগেই একজন আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারেন। আবার টিকা নেওয়ার পর অ্যান্টিবডি তৈরি হতে ১৪ থেকে ২১ দিন সময় লাগতে পারে। এর আগেও কেউ আক্রান্ত হতে পারেন।

ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, দ্বিতীয় ডোজ টিকা নেওয়ার পর করোনায় আক্রান্তের আশঙ্কা অনেকটাই কমে যাবে। কারণ তখন টিকা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করে ফেলবে। কিন্তু নানা শারীরিক সমস্যা থাকলে ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হলে ওই ব্যক্তি টিকা নেওয়ার পরও আক্রান্ত হতে পারেন। তবে এই সংখ্যা প্রতি ১০ হাজারে একজন হতে পারে বলে জানান তিনি।

করোনার জাতীয় টিকা বিতরণ সংক্রান্ত কোর কমিটির সদস্য ও আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. এ এস এম আলমগীর বলেন, প্রতিষেধক টিকা করোনা থেকে সুরক্ষিত থাকার একমাত্র উপায় নয়। এটি একটি মাত্র উপায়। টিকা নিয়ে কেউ স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে কিংবা যথাযথভাবে মাস্ক ব্যবহার না করলে তাদের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকবে। কারণ টিকা নিলে কেউ করোনায় আক্রান্ত হবেন না- এমন কোনো নিশ্চয়তা বিজ্ঞানীরা দেননি। টিকা নেওয়ার পরও যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে এবং মাস্ক ব্যবহার করতে হবে বলে জানান তিনি।

ডা. এ এস এম আলমগীর বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের অনেক দেশেই টিকা নেওয়ার পরও মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। সুতরাং বাংলাদেশে তিনজনের আক্রান্ত হওয়ার খবর নতুন কিছু নয়। শুধু অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার নয়; ফাইজার-বায়োনটেক কিংবা মডার্নার টিকা নেওয়ার পরও অনেকে আক্রান্ত হয়েছেন। এতে উদ্বেগের কিছু নেই।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের সাবেক ডিন অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ বলেন, টিকা নেওয়ার পরও যারা আক্রান্ত হয়েছেন, তারা প্রত্যেকেই ভালো আছেন বলে জানতে পেরেছি। কারণ টিকা নেওয়ার পর কেউ আক্রান্ত হলেও তার মারাত্মক সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঝুঁকি কম। সুতরাং টিকা নেওয়ার বিকল্প নেই। টিকা নেওয়ার পর অ্যান্টিবডি তৈরি হতে ১৪ থেকে ২১ দিন সময় লাগে। অতএব টিকা নেওয়ার পরও এই সময়ের আগে করোনার ঝুঁকি থাকবে। বিষয়টি নির্ভর করছে অ্যান্টিবডি তৈরি হওয়া ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপর। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তাদের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকবে। এ জন্য করোনার ঝুঁকি এড়াতে সবার প্রতি আহ্বান থাকবে, আগের মতো যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, মাস্ক ব্যবহার করুন।


মন্তব্য করুন