চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে পিকআপের চাপায় দুই কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। রোববার সকাল ৯টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সীতাকুণ্ড সদরের উত্তর বাইপাসে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, লোহা বোঝাই একটি লরি দাঁড়িয়ে থাকা পিকআপকে ধাক্কা দিলে ওই পিকআপ পথচারী দুই কিশোরকে চাপা দেয়। এতে তাদের মৃত্যু হয়। নিহতরা হলেন- জোড়ারগঞ্জ থানার দক্ষিণ মেহেদীনগর গ্রামের মোহাম্মদ আলমগীরের ছেলে মেহেদী হাসান জনি (১৩) ও সীতাকুণ্ডের সোবাহানবাগ এলাকায় বসবাসকারী বাগেরহাট চিতলমারী থানার মিন্টু মিয়ার ছেলে সিয়াম (১০)। সিয়ামের বাবা মিন্টু মিয়াও গুরুতর আহত হয়েছেন। তারা তিনজনই রাস্তা পার হওয়ার জন্য দাঁড়িয়ে ছিলেন।

নিহত মেহেদীর বাবা মো. আলমগীর জানান, তার ছেলে একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করতো। করোনার জন্য মাদ্রাসা বন্ধ থাকায় ও অভাবের কারণে মাছ বিক্রি করে সংসার চালান তারা।

প্রত্যক্ষর্দীরা জানান, রোববার মিরশরাই থেকে মাছ এনে সীতাকুণ্ডে মাছের আড়তে বিক্রি করে যাওয়ার সময় রাস্তা পার হওয়ার জন্য দাঁড়ালে ঢাকামুখী একটি পিকআপের পেছনে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি স্ক্র্যাপ বোঝাই লরি ধাক্কা দেয়। এতে পিকআপটি ওই তিনজনকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলে মারা যান মেহেদী ও সিয়াম। আহত হন সিয়ামের বাবা মিন্টু মিয়া।

পিকআপ চাপায় দুই কিশোর নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সীতাকুণ্ড কুমিরা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মোহাম্মদ আমীর ফারুক। 

গুরুতর আহত মিন্টু মিয়াকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।