এসক্রো সার্ভিসে ৩০ জুনের পরে ই-কমার্স খাতের ক্রেতাদের আটকে থাকা ২১৪ কোটি টাকা দ্রুত ফেরত দেওয়া শুরু হবে। এসব টাকা পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) ফ্রিজ করে রেখেছে। সিআইডি যাতে ডিফ্রিজ করে সেজন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেওয়া হয়েছে। তাদের ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার পরই টাকা বিতরণ শুরু করা যাবে।

সোমবার ই-কমার্স নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ গঠিত ১৫ সদস্যের কমিটির দ্বিতীয় বৈঠক শেষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ এইচ এম সফিকুজ্জামান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলোকে তদারকি ও পরিবীক্ষণের আওতায় আনতে এবং ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের অনৈতিক ব্যবসার কারণে যেসব ভোক্তা প্রতারিত হয়েছেন, তাদের অধিকার সুরক্ষায় চলতি মাসেই এই কমিটি গঠন করা হয়। সফিকুজ্জামান এই কমিটির প্রধান।

সফিকুজ্জামান জানান, ই-কমার্স খাতের ক্রেতাদের আটকে থাকা ২১৪ কোটি টাকা ফেরত দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেওয়া হয়েছে। তাদের ক্লিয়ারেন্স পাওয়ার পরই টাকা বিতরণ শুরু করা যাবে। এক্ষেত্রে সার্ভিস চার্জ বাবদ ১ শতাংশ টাকা কাটা হতে পারে। টাকাটা যেহেতু অনলাইনে দেওয়া হয়েছে, তাই এটা অনলাইনেই ফেরত যাবে।