বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, মালয়েশিয়ার সঙ্গে মুক্ত বাণিজ্য চুক্তি (এফটিএ) স্বাক্ষরের জন্য ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা প্রয়োজন। মালয়েশিয়ার সঙ্গে এফটিএ স্বাক্ষরের বিষয়ে আলোচনা অনেক দূর এগিয়ে আছে। বাংলাদেশ ইতোমধ্যে এলডিসি গ্রাজুয়েশন করেছে। এখন উন্নত বিশ্বের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করে ব্যবসা-বাণিজ্যে এগিয়ে যেতে হবে। এ গ্রাজুয়েশনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। বেশি সময় নেই। এ জন্য অগ্রাধিকার তালিকা করে কাজ হচ্ছে। এরই মধ্যে ভুটানের সঙ্গে অগ্রাধিকারমূলক বাণিজ্য চুক্তি (পিটিএ) সই হয়েছে। মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, অস্ট্রেলিয়াসহ বেশ কিছু দেশের সঙ্গে এফটিএ বা পিটিএ স্বাক্ষরের জন্য কাজ চলমান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশান ক্লাবে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (বিএমসিসিআই) ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে 'অপরচ্যুনিটিজ অ্যান্ড চ্যালেঞ্জেস অব এফটিএ ফর বাংলাদেশ' শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এফটিএ বা পিটিএ স্বাক্ষরের ফলে প্রাথমিকভাবে অর্থনীতির ওপর চাপ পড়বে। তবে দীর্ঘমেয়াদি চিন্তা করলে এর সুবিধা অনেক। বিভিন্ন দেশের সঙ্গে বাণিজ্য সুবিধা আদায় করতে এর বিকল্প নেই। এজন্য দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

তিনি বলেন, এফটিএর সঙ্গে শুধু অর্থনৈতিক বা বাণিজ্যিক সম্পর্ক নয়, অনেক টেকনিক্যাল ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আছে। দেশের স্বার্থ রক্ষা করেই আমাদের এ বিষয়ে এগিয়ে যেতে হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে দেশের ব্যবসায়ীদেরও দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখতে হবে।

বাংলাদেশ মালয়েশিয়া চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (বিএমসিসিআই) প্রেসিডেন্ট রকিব মোহাম্মদ ফখরুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন। প্যানেলিস্ট হিসেবে আলোচনায় অংশ নেন মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রদূত ফারুক সোবহান। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিএমসিসিআইর ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন অর্গানাইজিং কমিটির চেয়ারম্যান সৈয়দ আলমাস কবীর এবং সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম।