সম্প্রতি দেশব্যাপী লোডশেডিংয়ের প্রভাবে শিল্প কারখানার উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে কম গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোতে বিদ্যুৎ সরবরাহ কমিয়ে শিল্প খাতে বিদ্যুত সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন রাখার আহ্বান জানিয়েছে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই।

বুধবার রাজধানীর মতিঝিলে এফবিসিসিআই ভবনে আয়োজিত বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও ইউটিলিটিজ বিষয়ক স্থায়ী কমিটির সভায় এ আহ্বান জানান সংগঠনটির সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

তিনি বলেন, যেসব খাতে বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন হলেও খুব বেশি ক্ষতি হবে না সেসব খাতে লোডশেডিং দেওয়া যেতে পারে। কিন্তু শিল্প খাতে বিদ্যুৎ সরবরাহে বিঘ্ন হলে উৎপাদন ব্যাহত হবে। তাই বিদ্যুৎ সরবরাহের ক্ষেত্রে কম গুরুত্বপূর্ণ খাতগুলোর চেয়ে শিল্প খাতকে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে।

এছাড়াও জ্বালানি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সকল স্টেকহোল্ডারদের নিয়ে স্বল্প, মাঝারি ও দীর্ঘমেয়াদি রোডম্যাপ তৈরির আহ্বান জানান জসিম উদ্দিন।

সভায় এফবিসিসিআইর সহ-সভাপতি এম এ মোমেন বলেন, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ খাতে আগের চেয়ে অনেক বেশি উন্নত। তবে দেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখতে বিদ্যুতের বর্তমান এ সংকট মোকাবিলায় সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে।

কয়লা দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে ঢাকা চেম্বারের সাবেক সভাপতি ও এফবিসিসিআইর পরিচালক আবুল কাসেম খান বলেন, এনার্জি খাতের চুক্তিগুলো পুনরায় বিবেচনা করা দরকার।

জ্বালানি নিরাপত্তার উন্নয়নে জোর দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে কমিটির চেয়ারম্যান ও এনার্জিপ্যাক পাওয়ার জেনারেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হুমায়ুন রশিদ বলেন, আগামীতে জ্বালানিখাতে বিপুল মানুষের কর্মসংস্থান হবে। দেশের রপ্তানি অঞ্চলগুলোতেও বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ অব্যাহত রাখতে হবে। এমন পরিস্থিতিতে শক্তিশালী ও দীঘস্থায়ী পরিকল্পনা গ্রহণ করা অত্যন্ত জরুরি।

এছাড়া বেসরকারি খাতকে সংযুক্ত করে দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান ব্যবসায়ীরা। সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, এফবিসিসিআইর পরিচালক বিজয় কুমার কেজরিওয়াল, নাসের হাফেজ হারুন, আমজাদ হুসেইন, কমিটির কো-চেয়ারম্যান সালাউদ্দিন ইউসুফ, মাহফুজুল হক শাহ প্রমুখ।