কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প (সিএমএসএমই) খাতের জন্য ২৫ হাজার কোটি টাকার একটি পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এখান থেকে মাত্র ৭ শতাংশ সুদে ঋণ পাবেন উদ্যোক্তারা। সর্বোচ্চ পাঁচ বছর মেয়াদে এখান থেকে ঋণ নেওয়া যাবে। মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত নির্দেশনা ব্যাংকগুলোতে পাঠিয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, তহবিলের পরিমাণ হবে ২৫ হাজার কোটি টাকা। প্রয়োজনে এর আকার আরও বাড়ানো হবে। একটি ব্যাংক এ স্কিমের আওতায় যে পরিমাণ ঋণ দেবে তার অন্তত ৭৫ শতাংশ কুটির, মাইক্রো ও ক্ষুদ্র খাতে বিতরণ করতে হবে। আর সর্বোচ্চ ২৫ শতাংশ দেওয়া যাবে মাঝারি খাতে। মোট ঋণের ন্যূনতম ৭০ শতাংশ উৎপাদন ও সেবা খাতে দিতে হবে। আর সর্বোচ্চ ৩০ শতাংশ দেওয়া যাবে ব্যবসা খাতে। এখান থেকে ব্যাংকগুলো ২ শতাংশ সুদে অর্থ পাবে। আর গ্রাহক পর্যায়ে সর্বোচ্চ ৭ শতাংশ সুদ নেওয়া যাবে। 

এ স্কিমের আওতায় বিতরণ করা ঋণে গ্রেস পিরিয়ড হবে সর্বোচ্চ ৬ মাস। ব্যবসার ধরনভেদে ঋণের মেয়াদ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান নির্ধারিত হবে। তবে কোনোভাবেই মোট মেয়াদ ৫ বছরের বেশি হবে না।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০২৪ সালের মধ্যে মোট ঋণের ২৫ শতাংশ সিএমএসএমই খাতে বিতরণের লক্ষ্য রয়েছে। বর্তমানে যা ২০ শতাংশ আছে। যে কারণে কম সুদের এ তহবিল গঠন করা হয়েছে। এর বাইরে ৪ শতাংশ সুদে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা তহবিলের কার্যক্রমও চলবে।

এতে বলা হয়েছে, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে কুটির, মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। সিএমএসএমই খাতে নিয়োজিত উদ্যোক্তাদের মাঝে সহজ শর্তে ঋণের সুযোগ তৈরি করতে পারলে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন অধিকতর গতিশীল হবে। এ লক্ষ্যে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে উদ্যোক্তাদেরকে অপেক্ষাকৃত কম সুদে ও সহজ শর্তে ঋণ সুবিধা নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি পুনঃঅর্থায়ন স্কিম গঠন করেছে। এই স্কিমের নাম হবে 'সিএমএসএমই খাতে মেয়াদী ঋণের বিপরীতে পুনঃঅর্থায়ন স্কিম'।