ঢাকা মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪

ইউক্রেন সংকট

এক দিনে ৪০ শহরে হামলা

এক দিনে ৪০ শহরে হামলা

সমকাল ডেস্ক

প্রকাশ: ১৩ অক্টোবর ২০২২ | ১২:০০ | আপডেট: ১৩ অক্টোবর ২০২২ | ২১:৪৬

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আনা নিন্দা প্রস্তাব পাস হলেও থেমে নেই রুশ হামলা। প্রস্তাব পাসের পর দিনই বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের রাজাধানী কিয়েভসহ ৪০টিরও বেশি শহর ও বন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় রুশ বাহিনী। ইউক্রেনের পূর্ব ও দক্ষিণাঞ্চলীয় ৪টি অঞ্চল রাশিয়ার সঙ্গে যুক্ত করাকে অবৈধ হিসেবে অভিহিত করে গত বুধবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে একটি নিন্দা প্রস্তাব গৃহীত হয় জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে।

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফ বলেছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ইউক্রেনের ৪০টিরও বেশি আবাসিক এলাকায় রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হেনেছে। অন্যদিকে, দেশটির বিমানবাহিনী রাশিয়ার ২৫টি লক্ষ্যবস্তুতে অন্তত ৩২টি হামলা চালায়।

কিয়েভের আঞ্চলিক গভর্নর ওলেক্সি কুলেবা বলেছেন, প্রাথমিক তথ্য বলছে, ইরানের তৈরি গোলাবারুদ ব্যবহার করে এই হামলা চালানো হয়েছে।

নিপ্রোপেৎরোভস্ক অঞ্চলের নিকোপোল শহরের ৩০টিরও বেশি বহুতল ভবন, বাড়িঘর, গ্যাস পাইপলাইন এবং বিদ্যুৎ লাইনে হামলা চালায় রুশ বাহিনী। চলতি সপ্তাহে ব্যাপক রুশ হামলার পর ইউক্রেনের অনেক গ্রাম ও শহর এখন বিদ্যুৎহীন। দেশটির কর্মকর্তারা বলছেন, বৈদ্যুতিক অবকাঠামোর প্রায় ৩০ শতাংশই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পুরোপুরি বিদ্যুৎ সঞ্চালন শুরু করতে কয়েক সপ্তাহ সময় লেগে যাবে বলেও জানান তাঁরা।

ইউক্রেনজুড়ে যখন হামলা চলছে, তখন রুশ প্রেসিডেন্ট ভদ্মাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠক করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। এ দুই নেতার বৈঠকে যুদ্ধ বন্ধে নতুন কোনো উদ্যোগ আসবে- এমনটা ধারণা করা হলেও বৈঠকে ইউক্রেন সংকট সমাধান নিয়ে কোনো আলোচনাই হয়নি বলে জানিয়েছেন ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ। তিনি বলেন, দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে রুশ-ইউক্রেনীয় সমঝোতার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়নি। তবে, বৈঠকে এরদোয়ানের কাছে তুরস্কের ওপর দিয়ে আরও গ্যাস রপ্তানির বিষয়ে পুতিন প্রস্তাব দিয়েছেন বলেও জানান তিনি। বিষয়টি দ্রুত ও বড় পরিসরে সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের পক্ষে মত দিয়েছেন পুতিন ও এরদোয়ান। তবে তাঁরা কেউ-ই বৈঠকের বিষয়ে গণমাধ্যমে কোনো কথা বলেননি। বৃহস্পতিবার কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় একটি আঞ্চলিক শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে এই বৈঠক করেন তাঁরা। ১২-১৩ অক্টোবর ইন্টারঅ্যাকশন অ্যান্ড কনফিডেন্স বিল্ডিং মেজারস ইন এশিয়ার (সিআইসিএ) ষষ্ঠ শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নেন এই দুই নেতা। এর আগে ওই সম্মেলনে ভাষণে এরদোয়ান বলেন, তুরস্ক চায়, আলোচনার যে অগ্রগতি হয়েছে, তা অব্যাহত রাখা এবং যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রক্তপাত বন্ধ করা। তিনি বলেন, কূটনীতির মাধ্যমে ন্যায্য শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যেতে পারে, যুদ্ধে কোনো বিজয় নেই, আর ন্যায়সংগত শান্তিতে কোনো পরাজয় নেই।

এদিকে, ইউক্রেন মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোতে যোগ দিলে ইউক্রেনের সংঘাত তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধে পরিণত হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন রাশিয়ার নিরাপত্তা পরিষদের ডেপুটি সেক্রেটারি আলেকজান্ডার ভেনেডিক্টভ। তবে মানচিত্র থেকে ইউক্রেনের মতো একটি সার্বভৌম রাষ্ট্রকে রাশিয়া মুছে ফেলতে পারবে না বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিন্দা প্রস্তাব পাসের পর তিনি এ মন্তব্য করলেন।
অন্যদিকে, রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা ঠেকাতে ইউক্রেনকে নতুন আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ইউক্রেনের মিত্র দেশগুলো। সূত্র :বিবিসি, আলজাজিরা ও নিউইয়র্ক টাইমস।

আরও পড়ুন

×