ঢাকা শনিবার, ২৫ মে ২০২৪

ইউক্রেন সংকট

কিয়েভকে বিপুল অর্থ সহায়তা

কিয়েভকে বিপুল অর্থ সহায়তা

ছবি: রয়টার্স

সমকাল ডেস্ক

প্রকাশ: ২৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২:০০

বিশ্বের উন্নত অর্থনীতির দেশগুলোর জোট জি৭ ইউক্রেনের জন্য আগামী বছর ৩ হাজার ২০০ কোটি ডলারের বাজেট এবং আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে। জোটের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা এক যৌথ বিবৃতিতে একথা বলেছেন। প্রয়োজনে আরও সহায়তা দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তাঁরা।

বৃহস্পতিবার বিবৃতিতে জি৭ মন্ত্রীরা বলেছেন, 'আমরা ইউক্রেনের আশু স্বল্পমেয়াদি অর্থনৈতিক প্রয়োজন মেটাতে দৃঢ়ভাবে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং একই সঙ্গে অন্য দাতাদের যুদ্ধবিধ্বস্ত এই দেশটির জন্য তাদের অবদান বাড়ানোর আহ্বান জানাচ্ছি।' বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, প্রতিশ্রুত সহায়তার মধ্যে ১৯০০ কোটি ডলার দিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। রাশিয়ার আগ্রাসন মোকাবিলায় ইউক্রেনকে সমর্থন-সহায়তা দেওয়া জি৭-এর অগ্রাধিকার বলে জানিয়েছেন জার্মানির অর্থমন্ত্রী।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভদ্মাদিমির পুতিন বলেছেন, তিনি ইউক্রেন যুদ্ধের অবসান চান। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গে বৈঠকের পরদিনই বৃহস্পতিবার পুতিন এ মন্তব্য করলেন। পুতিন বলেন, 'সামরিক সংঘর্ষ চালিয়ে যাওয়া আমাদের লক্ষ্য নয়, বরং এই যুদ্ধের অবসান ঘটানো (আমাদের লক্ষ্য)। আমরা এই যুদ্ধের অবসানের জন্য চেষ্টা করব এবং তা অবশ্যই যত তাড়াতাড়ি হয় তত ভালো।'

অবশ্য হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র জন কিরবি বলেছেন, গত ফেব্রুয়ারিতে শুরু হওয়া ইউক্রেন যুদ্ধের সমাপ্তির জন্য আলোচনায় পুতিন কোনো আগ্রহ দেখাননি। পুতিনের মন্তব্য তাঁর পদক্ষেপের পুরোপুরি বিপরীত। কিরবি বলেন, প্রেসিডেন্ট বাইডেন পুতিনের সঙ্গে আলোচনার জন্য উন্মুক্ত রয়েছেন। তবে তা শুধু তখনই হবে, যখন রুশ নেতা আলোচনার বিষয়ে গুরুত্ব দেখাবেন।

রাশিয়া অবশ্য অব্যাহতভাবে বলছে, মস্কো আলোচনার জন্য উন্মুখ। কিন্তু ইউক্রেন ও তার মিত্রদের ধারণা, ইউক্রেনীয় ভূখণ্ডে রাশিয়ার ব্যর্থতার পরে সময়ক্ষেপণের জন্য চক্রান্ত হিসেবে রাশিয়া এই কথা বলছে। এদিকে প্রেসিডেন্ট পুতিন যুক্তরাষ্ট্রের প্যাট্রিয়ট আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার বিষয়েও কথা বলেছেন। সম্প্রতি প্রেসিডেন্ট বাইডেন এই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা জেলেনস্কিকে সরবরাহ করতে সম্মত হন। তবে পুতিন দাবি করেছেন, প্যাট্রিয়ট ব্যবস্থা 'বেশ পুরোনো' এবং রাশিয়ার এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার মতো কাজ করে না।

যুক্তরাষ্ট্র বলেছে, ইউক্রেন যুদ্ধে রাশিয়ার ভাড়াটে গোষ্ঠী ওয়াগনারকে ক্ষেপণাস্ত্র ও রকেট সরবরাহ করেছে উত্তর কোরিয়া। তবে এ দাবিকে 'অযৌক্তিক' বলে নিন্দা জানিয়েছে পিয়ংইয়ং। ওয়াশিংটনের দাবিকে অস্বীকার করেছে ওয়াগনারও। বৃহস্পতিবার হোয়াইট হাউসের জন কিরবি বলেন, পিয়ংইয়ং ওয়াগনার গ্রুপের কাছে অস্ত্রের একটি চালান পাঠিয়েছে, যা ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের জন্য ব্যবহার হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের মতে, ইউক্রেনে ভাড়াটে গোষ্ঠী ওয়াগনারের প্রায় ৫০ হাজার কর্মী রয়েছে। এর মধ্যে ১০ হাজার ঠিকাদার এবং রাশিয়ায় দণ্ডপ্রাপ্ত ৪০ হাজার আসামিকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ অবস্থায় ওয়াগনারের ওপর নতুন করে আরও নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার কথা ভাবছে বাইডেন প্রশাসন।

এদিকে ক্রেমলিন দাবি করেছে, ইউক্রেনকে অসামরিকীকরণ করার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে রাশিয়া। রাশিয়ার সামরিক অগ্রগতি সম্পর্কে মূল্যায়ন জানতে চাইলে প্রেস ব্রিফিংয়ে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ এ মত দেন। তবে মস্কো এমন দাবি করলেও ইউক্রেনে কোণঠাসা হয়ে পড়ায় গত সপ্তাহে সেনাবাহিনীর ১৭টি নতুন বিভাগ এবং একটি নতুন সেনা কর্প গঠনের পরিকল্পনা ঘোষণা করেছে রাশিয়া।

রাশিয়া আগামী মাসে তেল উৎপাদন কমানোর হুমকি দেওয়ার পর বিশ্বব্যাপী তেলের দাম বেড়েছে। পশ্চিমা দেশগুলো রাশিয়ার জ্বালানি রপ্তানির মূল্য নির্ধারণ করে দেওয়ার প্রতিক্রিয়া হিসেবে মস্কো ২০২৩ সালের প্রথম দিকে উৎপাদন ৫ থেকে ৭ শতাংশ কমানোর হুমকি দিয়েছে শুক্রবার। এর পর বিশ্বব্যাপী তেলের দাম এক ডলারের বেশি বেড়েছে। সূত্র :বিবিসি, আলজাজিরা ও এএফপি।

আরও পড়ুন

×