কর্ণাটক সরকারে ভাঙন অব্যাহত, বিধায়কদের পদত্যাগের হিড়িক

প্রকাশ: ০৮ জুলাই ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

নির্দলীয় বিধায়ক নাগেশ পদত্যাগপত্র জমা দিচ্ছেন-এনডিটিভি

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে ইস্তফার হিড়িক অব্যাহত। শনিবার কর্ণাটকে ধর্মনিরপেক্ষ জনতা দল (জেডিএস) ও কংগ্রেসের মোট ১১ জন বিধায়ক পদত্যাগ করেন। এ নিয়ে চলছে নেতাদের ছুটোছুটি। এরইমধ্যে সোমবার সকালে পদত্যাগ করছেন শাসক জোটের শরিক দল কংগ্রেসের ২১ মন্ত্রী। আর এরপর জেডিএস-এর মন্ত্রীরাও ইস্তফা দিয়েছেন। খবর এনডিটিভির।

কংগ্রেস নেতা সিদ্দারামাইয়া জানান, মোট ২১ মন্ত্রী মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিচ্ছেন। বিধায়কদের হাতে রাখতে মন্ত্রিসভায় বড়সড় অদলবদলের আশ্বাস দেন তিনি।

এ দিকে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত, জোট সরকারের থাকা নির্দলীয় বিধায়ক নাগেশও সরে দাঁড়িয়েছেন। 

রাজ্যপালকে চিঠি দিয়ে তিনি জানান, কুমারস্বামীর সরকারের উপর সমর্থন তুলে নিচ্ছেন। বিজেপি সরকার গড়ার ডাক পেলে তিনি সমর্থন দেবেন বলে আশ্বাসও দেন। এর ফলে কার্যত সংখ্যালঘু হয়ে পড়লো কংগ্রেস-জেডিএস জোট।

শনিবার ১০ কংগ্রেস এবং ৩ জেডিএস বিধায়ক স্পিকারের কাছে তাদের পদত্যাগপত্র জমা দিলে ভাঙনের মুখে পড়ে কর্ণাটক রাজ্যের জোট সরকার। এরপর শুরু হয় একের পর এক পদত্যাগের হিড়িক। 

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে রোববার দেশে ফেরেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এইচডি কুমারাস্বামী। রাতেই শরিকদের নিয়ে বৈঠক করেন তিনি। 

এদিকে সোমবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং স্পষ্ট জানিয়ে দেন, বিজেপি এই ঘটনায় কোনোওভাবে যুক্ত নয়। ঘোড়া কেনাবেচা কখনও করে না বিজেপি। 

পাল্টা সিদ্দিরামাইয়া টুইটে অভিযোগ করেন, বিজেপি সরকার ক্ষমতার অপব্যবহার করছে এবং এজেন্সিকে কাজে লাগিয়ে কংগ্রেসের বিধায়কদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। শুধু রাজ্য বিজেপির নেতারা নন মদদ রয়েছে স্বেচ্ছাচারী অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির।