চিলিতে সহিংসতায় ৩ জনের মৃত্যু

প্রকাশ: ২০ অক্টোবর ২০১৯     আপডেট: ২০ অক্টোবর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

সান্তিয়াগোতে চলমান সহিংসতার ফলে শনিবার রাতে সুপারমার্কেটে আগুন লেগে যায়। এতে তিন জন মারা গেছে।

আগুনে দুই জন ঘটনাস্থলে এবং একজন হাসপাতালে নেওয়ার পরে মারা যায়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় মেয়র কারলা রুবিলার। 

এ মাসের শুরুতে মেট্রোরেলে পিক আওয়ারে ভ্রমণের ভাড়া এক দশমিক ১৭ ডলার (০.৯০পেসো) সমপরিমাণ বাড়ানো হয়। মেট্রোর ভাড়া বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার স্থানীয় স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মেট্রোস্টেশন ভাংচুর ও পুলিশের গাড়িতে আগুন দেয়। পুলিশও পাল্টা লাঠি চার্জ ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করে। এতে কার্যত অচল হয়ে পড়ে শহরটি।   

বিবিসির খবরে বলা হয়, শনিবার বিক্ষোভ সহিংসতার মুখে সরকার জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে সান্তিয়াগোতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা সত্ত্বেও বিক্ষোভ চলতে থাকে। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের পর ঝুকিপূর্ণ অঞ্চলে কারফিউ জারি করা হয়।

টেলিভিশন ও রেডিওতে দেশটির রাষ্ট্রপতি সেবাস্তিয়ান পিনেরা বলেন, ‘প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ না করে এরা ভাংচুর ও সহিংসতা করছে। এটা অন্যায়।’ 

এই বক্তব্য দেওয়ার পরই সমালোচনার মুখে পড়ে মেট্রোরেলের ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরে দাড়ান সরকার।

সরকার ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসলেও আন্দোলনকারীদের বিক্ষোভ-সহিংসতা থামছে না। 

এ পর্যন্ত ৩০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং সহিংসতায় ১৫৬ জন পুলিশ আহত হয় যার মধ্যে ১১ জন বেসামরিক পুলিশও ছিল।  

অস্থিরতার কারণে সেখানে সাংস্কৃতিক ও খেলাধূলার অনুষ্ঠান এবং দোকান-পাট বন্ধ রাখা হয়েছে। ১৩৬ টি স্টেশনের মধ্যে ৪১ টি স্টেশন ভাংচুরের কারণে মেট্রোরেল বন্ধ ঘোষণা করা হয় সোমবার পর্যন্ত। 

চিলির যে অঞ্চলে এই অস্থিরতা দেখা দিয়েছে সেই শহর ল্যাটিন আমেরিকার সবচেয়ে ধনবান শহর হলেও অনেক ক্ষেত্রে বৈষম্য রয়েছে। ৬০ লাখ লোকের বসবাসের ওই শহরে জীবনযাত্রার মান দিন দিন ব্যয়বহুল হয়ে উঠছে।