হ্যাক হয়েছিল প্রিয়াঙ্কার ফোনও!

প্রকাশ: ০৩ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ০৩ নভেম্বর ২০১৯      

সমকাল ডেস্ক

প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর ফোন হ্যাক হয়েছিল বলে অভিযোগ উঠেছে। এই হ্যাকিংয়ের জন্য দলটি আঙুল তুলেছে দেশটির সরকারের দিকে। রোববার এনডিটিভির প্রতিবেদনে এ তখ্য জানানো হয়। হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে স্পাইওয়্যার ছড়িয়ে ভারতের বেশ কয়েকজন সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীর ফোন হ্যাক করার খবরের মধ্যেই প্রিয়াঙ্কার ফোন হ্যাক হওয়ার খবর এলো।

শনিবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার ফোন হ্যাক হয়েছে বলে দাবি করেন। ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির (এনসিপি) নেতা ও সাবেক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রফুল প্যাটেলের ফোন হ্যাক হওয়ার কথা জানিয়েছে কংগ্রেস।  

কংগ্রেসের জ্যেষ্ঠ নেতা রনদ্বীপ সুরযেওয়ালা রোববার সাংবাদিকদের জানান, যাদের ফোন হ্যাক হয়েছে তাদের সবার কাছেই হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে মেসেজ পাঠানো হয়। যার মাধ্যমে স্পাইওয়্যার ছড়িয়ে দেওয়া হয়। একই রকম একটি মেসেজ পাঠানো হয় প্রিয়াঙ্কাকেও। তবে প্রিয়াঙ্কার টিমের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ওই মেসেজ পাওয়ার পরপরই ডিলেট করে দেন কংগ্রেস নেত্রী। পরে সুরযেওয়ালার হোয়াটসঅ্যাপ থেকে একই রকম একটি মেসেজ প্রিয়াঙ্কার হোয়াটসঅ্যাপে পাঠানো হলে তার ফোনটি হ্যাক হয় বলে ধারণা করা হচ্ছে। সূত্র জানিয়েছে, সে রকম একটি মেসেজ প্রিয়াঙ্কা পেয়েছিলেন।

ফেসবুকের একটি প্রতিষ্ঠান হোয়াটসঅ্যাপ। গত সপ্তাহে ফেসবুকের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, এনএসও নামে ইসরায়েলের সাইবার নিরাপত্তা কোম্পানি হোয়াটসঅ্যাপের সারভার ব্যবহার করে অনেকের ফোনেই আড়িপাতার চেষ্টা করেছিল। ২০টি দেশের এক হাজার ৪০০ ব্যবহারকারীর হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টে স্পাইওয়্যার ছড়িয়ে দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

স্পাইওয়্যার এক ধরনের সফটওয়্যার বা প্রযুক্তি যা ব্যবহারকারীর অজান্তে তার মোবাইল বা কম্পিউটারে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এর ফলে ওই ব্যবহারকারীর সব পাসওয়ার্ড, ফোন নম্বরের তালিকা, ছবিসহ যাবতীয় তথ্য পেয়ে যায় আড়িপাতা ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান। ইসরায়েলের ওই প্রতিষ্ঠানটি ভারতীয় সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীসহ কূটনীতিক ও সরকারি কর্মকর্তাদের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টে স্পাইওয়্যার ছড়িয়ে তাদের টার্গেট করেছিল। এই এনএসও গ্রুপের বিরুদ্ধে গত বুধবার মামলা করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। গত এপ্রিল ও মে মাসে ইসরায়েলের প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে সাইবার হামলার অভিযোগ করা হয়েছে।

প্রিয়াঙ্কার ফোন হ্যাক হওয়ার খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে কংগ্রেসের নেতাকর্মীরা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এর জবাবদিহি করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তারা। কংগ্রেস নেতা সুরযেওয়ালা বলেন, ফোন হ্যাক করার এসব তৎপরতার সব খবর বিজেপি সরকারের কাছে ছিল। 

কংগ্রেসের পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, গত মে মাসে হোয়াটসঅ্যাপ ফোন হ্যাকিংয়ের বিষয়ে তারা সরকারকে সতর্ক করেছিল। কিন্তু সরকার কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে বলা হয়েছে, গত সেপ্টেম্বরেও হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ভারত সরকারকে স্পাইওয়্যারের মাধ্যমে ফোন হ্যাকিংয়ের বিষয়ে সতর্ক করেছিল। বলা হয়েছিল, ইসরায়েলের প্রতিষ্ঠানটি ১২১ ভারতীয় নাগরিককে তাদের লক্ষ্যবস্তু বানিয়েছে। তবে ভারতের তথ্য ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, সে সময় তারা যে তথ্য হোয়াটসঅ্যাপের কাছ থেকে পেয়েছিল তা পর্যাপ্ত ছিল না।

সুরযেওয়ালার অভিযোগ, তার দেশের সরকার ইসরায়েলের প্রতিষ্ঠানটিকে নাগরিকদের ওপর নজরদারি চালানোর সুযোগ করে দিয়েছে। তবে বিজেপি এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।