ভারোত্তোলক বৃদ্ধার পিটুনি খেয়ে হাসপাতালে চোর

প্রকাশ: ২৭ নভেম্বর ২০১৯     আপডেট: ২৭ নভেম্বর ২০১৯      

অনলাইন ডেস্ক

উইলি মার্ফি

বাড়িতে ৮২ বছরের বৃদ্ধা একা থাকে ভেবে চুরি করতে ঢুকেছিল এক চোর। কিন্তু কিছু চুরি তো দূরে থাক, উল্টো বৃদ্ধার হাতে মার খেয়ে হাসপাতালে যেতে হয়েছে তাকে। কারণ ওই বৃদ্ধা সহজ কেউ ছিলেন না। তিনি ছিলেন পুরস্কারপ্রাপ্ত একজন ভারোত্তোলক, যিনি এখনও ২২৫ পাউন্ড ওজন তুলতে পারেন।

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউয়র্কের রচেস্টারে।

জানা গেছে, উইলি মার্ফি নামের ওই বৃদ্ধা সেদিন ঘুমানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এমন সময় দরজায় টোকা দিয়ে এক ব্যক্তি জানান, তিনি খুব অসুস্থ বোধ করছেন, এখনই যেন তার জন্য একটা অ্যাম্বুলেন্স ডাকেন উইলি। কিন্তু ওই ব্যক্তির কথায় সন্দেহ হওয়ায় দরজা খুলতে অস্বীকৃতি জানান তিনি।

কিছুক্ষণ পরে উইলি অন্ধকারে তার ঘরের মধ্যে কাউকে হাঁটতে দেখেন। ঘরে চোরের অস্তিত্ব বুঝতে পেরে তিনি হাতের কাছে কিছু খুঁজতে থাকেন। 

এরপর তিনি চোরকে টেবিল দিয়ে আঘাত করেন। চোখে-মুখে শ্যাম্পু ছুড়ে দেন আর ঝাড়ু দিয়ে পেটাতে থাকেন।

বৃদ্ধা চোরকে এতটাই মার দেন যে চোর মাটিতে পড়ে যায়। উইলি তখন বুঝতে পারেন ওই ব্যক্তিই কিছুক্ষণ আগে সাহায্যের জন্য দরজায় টোকা দিয়েছিল। 

চোরকে মারধরের পর উইলি পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে চোরের জন্য 'কাঙ্খিত' সেই অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করে।

উইলি পরে সংবাদমাধ্যমকে জানান, অন্ধকার ঘরে তিনি একা ছিলেন। তার বয়স হয়েছে। কিন্তু এখনও তিনি যথেষ্ট শক্তি রাখেন। চোর ভুল বাড়ি বেছে নিয়েছে চুরির জন্য। সূত্র: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস