ঢাকা সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪

এগারোতে মাশরাফি তেইশে তামিম

এগারোতে মাশরাফি তেইশে তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রকাশ: ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ১৮:০০ | আপডেট: ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ০৪:১৯

তামিম ইকবাল অবসর ভেঙে ফিরেছিলেন বিশ্বকাপ খেলার জন্য। নিয়তির কী পরিহাস, সেই বিশ্বকাপে খেলা হচ্ছে না তাঁর। কোমরের ব্যথা পুরোপুরি না সারায় বিশ্বকাপ দলে নেওয়া হয়নি তাঁকে। ২০০৭ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত টানা চার বিশ্বকাপ খেলা বাঁহাতি ওপেনারের এমন বিদায় হতে পারে! কেউ তা ভাবতেও পারেনি। 

তামিমকে ছাড়া বিশ্বকাপ খেলতে আজ ভারত যাচ্ছে বাংলাদেশ দল; ভাবতেই কেমন অবাক লাগে। তাঁর জায়গায় দলে নেওয়া হয়েছে তরুণ তানজিদ হাসান তামিমকে। মূলত কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের আপত্তির কারণে জাতীয় দল নির্বাচক প্যানেল ১৫ জনের দলে অন্তর্ভুক্ত করতে পারেনি তাঁকে। ২০১১ সালের বিশ্বকাপেও ঠিক অনুরূপ ঘটনা ঘটেছিল মাশরাফি বিন মুর্তজার সঙ্গে। নড়াইল এক্সপ্রেস পুরোপুরি ফিট না হওয়ায় তৎকালীন প্রধান কোচ জেমি সিডন্স ও অধিনায়ক সাকিব আপত্তি করেছিলেন মাশরাফির ব্যাপারে। 

দেশের মাটিতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে খেলতে না পারলেও পরের দুই বিশ্বকাপ মাশরাফির অধীনে খেলতে হয়েছে সাকিবকে। যদিও তামিম-সাকিবের বেলায় তেমন কিছু ঘটার সম্ভাবনা নেই। কারণ এটিই হতে পারে এ দুই ক্রিকেটারের শেষ ওয়ানডে বিশ্বকাপ।

বিশ্বকাপ স্কোয়াড ঘোষণা নিয়ে গত কিছু দিন নাটক চলছিল। তামিমের ফিটনেস, মাহমুদউল্লাহর ব্যাটিং পারফরম্যান্স দেখে নিয়ে চূড়ান্ত দল নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন নির্বাচকরা। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম দুই ম্যাচ খেলার পর তামিম সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, তিনি শতভাগ ফিট নন। কোমরে জড়তা রয়েছে। নিজের শারীরিক কন্ডিশন সম্পর্কে নির্বাচক প্যানেল ও বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগকে অবহিত করেন তিনি। ফিটনেসের ইস্যু মাথায় রেখে তাঁকে বিশ্বকাপ দলে নেওয়া, না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিতে বলেছিলেন। 

বিসিবির একজন পরিচালক জানান, তামিমকে বিশ্বকাপ দলে রাখার ব্যাপারে আপত্তি ছিল না নির্বাচকদের। আপত্তি তুলেছেন কোচ-অধিনায়ক। আনফিট ক্রিকেটারকে নিয়ে বিশ্বকাপে যেতে চাননি তারা। গত দু’দিন গুঞ্জন ছিল– বিসিবি সভাপতিকে সাকিব হুমকি দিয়েছিলেন, আনফিট খেলোয়াড় দেওয়া হলে নেতৃত্ব ছেড়ে দেবেন। যদিও এর সত্যাতা মেলেনি। ব্যক্তিগত ইস্যুতে এশিয়া কাপের সময় মানসিক চাপমুক্ত থাকতে নেতৃত্ব করতে চাচ্ছিলেন না। 

তামিম শতভাগ ফিট না হওয়ায় বিশ্বকাপ দলে নেওয়া হয়নি। অথচ কম-বেশি চোট সমস্যা নিয়ে বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন তরুণ পেসার তানজিম হাসান সাকিব, বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। মেহেদী হাসান মিরাজরাও পুরোপুরি ফিট নন। তাহলে তামিমের বেলায় কেন এ বৈষম্য? 

শুধু তামিমই নন, তাঁর বড় ভাই নাফিস ইকবালকে জাতীয় দলের ম্যানেজারের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে সাকিব চাওয়ায়। এসব নিয়ে কথা বলতে গতকাল মাশরাফি বিন মুর্তজাকে বিসিবিতে ডেকেছিলেন নাজমুল হাসান পাপন। কারণ মাশরাফির মধ্যস্থতায় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে অবসরের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করেছিলেন তামিম। সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ককে বিশ্বকাপ দলে জায়গা দিতে না পারার কারণটাও হয়তো নড়াইল এক্সপ্রেসকে জানিয়ে রাখলেন বোর্ড সভাপতি। 

যার বিশ্বকাপ খেলা নিশ্চিত ছিল, সেই যেতে পারলেন না। আর যে ছিলেন অনিশ্চিত, সেই মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ খেলবেন নিজের চতুর্থ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। মজার ব্যাপার হলো, হাথুরুসিংহে চেয়েছিলেন অভিজ্ঞ ক্রিকেটারদের নিয়ে বিশ্বকাপে যেতে, এখন অনভিজ্ঞ দল নিয়ে খেলতে হবে ভারত বিশ্বকাপে।

আরও পড়ুন

×