ব্রিটিশ রাজ পরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্যের দায়িত্ব ছাড়লেন ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারি এবং ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল।

হ্যারি ও মেগান তাদের হিজ/হার রয়্যাল হাইনেস (এইচআরএইচ) উপাধি আর ব্যবহার করবেন না এবং রাজকীয় দায়িত্ব পালনের জন্য সরকারি অর্থও গ্রহণ করবেন না। শনিবার এক ঘোষণায় এমনটাই জানিয়েছে বাকিংহাম প্যালেস।

এই দম্পতি আনুষ্ঠানিকভাবে ব্রিটেনের রানির প্রতিনিধিত্বও করবেন না।

হ্যারি ও মেগান যুক্তরাজ্যে তাদের পারিবারিক বাসস্থান ফ্রগমোর কটেজ সরকারি অর্থে সংস্কার করতে যে অর্থ ব্যয় হয়েছে তা শোধ করারও ইচ্ছাও পোষণ করেছেন।  

চলতি বছরের বসন্ত থেকেই নতুন এসব ব্যবস্থা কার্যকর হবে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে বাকিংহাম প্যালেস।

গত অক্টোবরে গণমাধ্যমের নজরদারির মধ্যে থাকতে থাকতে জীবন বিষিয়ে ওঠার কথা জানান হ্যারি-মেগান। 

এর তিন মাসের মাথায় রাজপরিবারের জ্যেষ্ঠ সদস্য হিসেবে আর রাজকীয় দায়িত্ব পালন করতে চান না বলে ঘোষণা দেন এই দম্পতি। 

গত ৮ জানুয়ারি বিবৃতি দিয়ে ও ইনস্টগ্রামে পোস্ট দিয়ে রাজপরিবার ছাড়ার কথা জানান তারা।

বিবৃতিতে রানি বলেছেন, “বেশ কয়েক মাস ধরে চলা কথাবার্তা ও সাম্প্রতিক আলোচনায় আমরা সবাই মিলে আমার নাতি ও তার পরিবারের জন্য একটি গঠনমূলক ও সহায়ক পথ পাওয়ায় আমি সন্তুষ্ট। হ্যারি, মেগান ও আর্চি সবসময় আমার পরিবারের অতি আপনজনই থাকবে।

তিনি আরও বলেন, আমি তাদের আরও স্বাধীন জীবনযাপনের ইচ্ছার প্রতি সমর্থন জানাচ্ছি। দেশজুড়ে, কমনওয়েলথ ও এর বাইরে তাদের আত্মনিবেদিত সব কাজের জন্য আমি তাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই, আর বিশেষভাবে মেগান যে দ্রুততার সঙ্গে পরিবারের একজন হয়ে উঠেছে তাতে আমি গর্বিত।

হ্যারি ও মেগান তাদের ব্যক্তিগত পৃষ্ঠপোষকতা ও সঙ্ঘ-সমিতির সঙ্গে সম্পকর্ বজায় রাখবেন।


মন্তব্য করুন