গত কয়েকদিন ধারাবাহিক তুষারধস, বরফ গলা পানির স্রোত এবং শীতের তীব্রতার কারণে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে কমপক্ষে ১৩০ জন নিহত হয়েছে। প্রবল তুষারপাতে নিখোঁজ রয়েছেন আরও অনেকে। 

মঙ্গলবার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত কয়েকদিনের বৈরী আবহাওয়ায় শুধু পাকিস্তানেই নিহত হয়েছেন ৯৩ জন। অন্যদিকে আফগানিস্তানে নিহত হয়েছে ৩৯ জন। 

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  

পাকিস্তানের দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে হতাহতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। তুষারধসে অঞ্চলটিতে ৬২ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া নিখোঁজ আছেন আরও ১০ জন। এছাড়া পাকিস্তানের দক্ষিণ-পূর্ব প্রদেশ বেলুচিস্তানে নিহত হয়েছেন ৩১ জন। নিহতদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু বলে জানা গেছে।

কর্তৃপক্ষ বলছে, শীতের সময় কাশ্মীরে প্রায়ই তুষারধস এবং ভূমিধসের ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত তুষারপাতে কারণে রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে যাওয়ায় কাশ্মিরের সঙ্গে অন্যান্য অঞ্চলের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। 

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে বিভিন্ন এলাকায় স্কুল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া দেশের উত্তর পার্বত্য এলাকাসহ একাধিক এলাকায় মহাসড়ক বন্ধ রাখা হয়েছে। 

এদিকে ভারত শাসিত কাশ্মীরে গত কয়েকদিনে তুষারধসে ছয় সেনাসহ কমপক্ষে ১২ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।   সূত্র : দ্য গার্ডিয়ান