করোনায় আক্রান্তরা আছেন সন্দেহে ইউক্রেনে চীন থেকে ফেরা কয়েকটি বাসে হামলা হয়েছে।

দেশটির পোল্টাভা শহরের নভি স্যানঝেরির একটি হাসপাতালে নেওয়ার পথে তাদের ওপর বিক্ষুব্ধরা এই হামলা চালায় বলে শুক্রবার বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এই ৪৫ ইউক্রেনিয়ান এবং ২৭ বিদেশি নাগরিককে আগামী ১৪ দিন হাসপাতালে কোয়ারেন্টাইন করে রাখা হবে। তারা উহানে কোয়ারেন্টাইন থেকে বৃহস্পতিবার দেশে আসেন।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বিষয়টি নিয়ে সহিষ্ণু হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বিক্ষোভকারীদের ওই ব্যক্তিদের প্রতি সহমর্মিতা দেখানোর অনুরোধ করেছেন।

সম্প্রতি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নামে একটি ভুয়া ইমেইল ছড়িয়ে দিয়ে ইউক্রেনে আসা ওই ব্যক্তিদের মধ্যে কাউকে কাউকে করোনায় আক্রান্ত দাবি করা হয় বলে জানিয়েছে ইউক্রেনের সিকুউরিটি সার্ভিস।

চীনফেরত ব্যক্তিদের নিয়ে বৃহস্পতিবার যখন ছয়টি বাস নভি স্যানঝেরির হাসপাতালে যাচ্ছিল; তখন তা বাধার মুখে পড়ে। বিক্ষুব্ধরা এ সময় পাথর ছুড়ে, আগুন ধরিয়ে প্রতিবাদ করেন। হামলাকারীরা তাদের চীনে ফিরিয়ে নেওয়ার দাবি জানান।

ইউক্রেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, চীনফেরত কারো শরীরেই করোনার অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

প্রধানমন্ত্রী ওলেক্সি হনচারুক, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জরিয়ানা স্কলাস্টিকা এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আর্সেন অ্যাভাকভ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ গ্রহণের কথা জানান তারা।

বিক্ষুব্ধদের শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়ে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি বিবৃতিতে বলেছেন, চীন থেকে আসা ব্যক্তিদের অধিকাংশেরই বয়স ৩০। এরা আমাদের সন্তানের মতো।