আফ্রিকার মানুষদের ওপর করোনাভাইরাসের টিকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা উচিত- এমন বর্ণবাদী মন্তব্য করেছেন ইউরোপের দেশ ফ্রান্সের দুই চিকিৎসক। বিশ্বব্যাপী চিকিৎসকরা যখন প্রাণ বাজি রেখে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা করছেন, তখন ফরাসি দুই চিকিৎসকের এমন বর্ণবাদী মন্তব্যে সমালোচনার ঝড় বইছে। খবর: আলজাজিরার

স্থানীয় সময় বুধবার ফ্রান্সের এলসিআই টিভি চ্যানেলে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত এক আলোচনায় অংশ নেন প্যারিসের কোচিনে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের প্রধান জ্য-পল মিরা ও দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের গবেষণা পরিচালক ক্যামি লথ।

আলোচনার এক পর্যায়ে ইউরোপ ও অস্ট্রেলিয়ায় করোনা প্রতিরোধে যক্ষার টিকার পরীক্ষা মূলক প্রয়োগের বিষয়টি উঠে আসে। তখন জ্য-পল মিরা বলেন, আফ্রিকার মানুষদের ওপর এসব টিকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা উচিত। কারণ তারা মাস্ক পরে না, ওই সব দেশে পর্যাপ্ত চিকিৎসার ব্যবস্থা নেই, এমনকি তারা নিজেদের রক্ষা করার ব্যাপারেও সচেতন না। আফ্রিকার যৌন কর্মীদের ওপর যেমন এইচআইভির পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়েছিল, এবারও তেমনটাই করা হোক।

উপস্থিত আরেক চিকিৎসক ক্যামি লথ সহমত প্রকাশ করেন জ্য-পল মিরার বক্তব্যের সঙ্গে। পরে তাদের মন্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

দুই চিকিৎসকের এমন বর্ণবাদী মন্তব্যের আলোচনা-সমালোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। আফ্রিকার দেশ আইভরি কোস্টের কিংবদন্তী ফুটবলার দিদিয়ের দ্রগবা টুইটারে লিখেছেন, আফ্রিকা কোনো পরীক্ষাগার নয়। এ ধরনের বর্ণবাদী কথার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি আমি।

ফ্রান্সের সমাজতান্ত্রিক দল, বর্ণবাদবিরোধী দল এসওএসসহ দেশটির বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠন দুই চিকিৎসকের বর্ণবাদী মন্তব্যের কঠোর নিন্দা করেছে।

তুমুল সমালোচনার মুখে বিবৃতি প্রকাশ করে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হয়েছেন ডা. জ্য-পল মিরা। তবে ডা. ক্যামি লথের কর্মীরা হ্যাশটেগ দিয়ে পুরো ঘটনাকে ‘ভুয়া সংবাদ’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।