সিঙ্গাপুরে দক্ষিণ এশিয়াসহ অন্যান্য অঞ্চলের অভিবাসী শ্রমিকদের মধ্যে করোনভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। স্ট্রেইট টাইমস অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নতুন করে ১০৬ জনের আক্রান্ত হওয়ার তথ্য দিয়েছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে ১০৩ জন স্থানীয় ও তিনজন বিদেশফেরত। সবমিলিয়ে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৪৮১ জনে। 

৫২টি গুচ্ছ সংক্রমণের সন্ধান পাওয়া গেছে সিঙ্গাপুরে। তার মধ্যে ৩৯টি গুচ্ছই প্রবাসী শ্রমিকদের থাকার জায়গার (ডরমেটরি) সঙ্গে সম্পৃক্ত। প্রবাসী শ্রমিকদের মধ্যে আক্রান্তের সংখ্যাও বাড়ছে।

দু’টি ডরমেটরিতে ২০ হাজার শ্রমিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন। শ্রমিকদের কয়েকজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে অন্যদের মধ্যে সংক্রমণ ঠেকাতে গত সোমবার এ পদেক্ষপ নেয় সিঙ্গাপুর সরকার। এ শ্রমিকদের সবাই দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর বাসিন্দা।

ওই দু’টি ডরমেটরির একটি পুঙ্গলে অবস্থিত এস১১ ডরমেটরিতে মঙ্গলবার নতুন করে ১০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। সবমিলিয়ে এই ডরমেটরির ৯৮ জন আক্রান্ত হলেন। এই ডরমেটরিতে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৩ হাজার শ্রমিক।

অপরটি ওয়েস্টলাইট তোহ গুয়ান ডরমেটরি। সেখানে নতুন করে ৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৪ জনে। এই ডরমেটরিতে সাড়ে ছয় হাজারের বেশি শ্রমিক কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন।

এই দুটি ডরমেটরিতে থাকা শ্রমিকদের মধ্যে বাংলাদেশি শ্রমিকরা রয়েছেন কিনা তা স্ট্রেইট টাইমসের প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়নি।

অভিবাসী শ্রমিকদের অন্য যে ডরমেটরিগুলোর মধ্যে সংক্রমণ ছড়িয়েছে সেগুলো হলো তোহ গুয়ান রোড পূর্বে অবস্থিত তোহ গুয়ান ডরমেটরি, চোয়া চু কাং রোডে অবস্থিত সুঙ্গে তেঙ্গা লজ, তামপাইনেস ডরমেটরি, কোকারনে লজ ১ ও ২।