করোনাভাইরাস প্রতিরোধ করতে পারে মুখে খাওয়ার এমন ওষুধ বা বড়ি তৈরির ক্ষেত্রে সফলতার দাবি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের একদল বিজ্ঞনী। তারা পরীক্ষাগারে এর সফল পরীক্ষাও চালিয়েছেন।

জিনহুয়ার খবরে বলা হয়েছে, গবেষণাগারে মানুষের ফুসফুসের প্রতিলিপি তৈরি করে ওষুধটি প্রয়োগ করা হয়। তাতে দেখা গেছে ফুসফুসের বিভিন্ন কোষে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে ওষুধটি কার্যকরী। ইঁদুরের ওপরও পরীক্ষাটি করা হয়েছে এবং তার ইতিবাচক ফল পাওয়া গেছে।

করোনাভাইরাস পরিবারের আরও দু’টি মারাত্মক ভাইরাস হলো মার্স ও সার্স ভাইরাস। গবেষণায় দেখা গেছে এ দু’টি ভাইরাসের বিরুদ্ধেও প্রতিরোধ করতে সক্ষম হয়েছে ওষুধটি।

সোমবার সায়েন্স ট্রান্সলেশনাল মেডিসিন জার্নালে গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হয়। গবেষকরা ওষুধটির নাম দিয়েছেন ইআইডিডি-২৮০১। যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনা বিশ্ববিদ্যালয়েল এপিডেমিওলজি বিভাগের অধ্যাপক টিমোথি শেহানের নেতৃত্বে একদল গবেষক ওষুধটি নিয়ে গবেষণা করেছেন।

এর আগে, গবেষকরা রেমডেসিভির নামে একটি ওষুধের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চালিয়েছিলেন। সেই ওষুধটিও নভেল করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে কার্যকর হয়েছিল। তবে অধ্যাপক টিমেথির দাবি, ইআইডিডি-২৮০১ ওষুধটি করোনাভাইরাস পরিবারের অন্যান্য ভাইরাস প্রতিরোধে রেমডেসিভির চেয়েও বেশি কার্যকর। কারণ ইআইডিডি-২৮০১ সার্স ও মার্সকেও প্রতিরোধ করতে পারে।

ইআইডিডি-২৮০১ ওষুধটি এখনও মানুষের ওপর পরীক্ষামূলকভাবে প্রয়োগ করা হয়নি। তবে ইতিবাচক ফল পাওয়া গেলে মহামারির এই সময়ে ওষুধটি নিশ্চিতভাবেই আশীর্বাদ হবে। কারণ শিরায় ইনজেকশান দিয়ে টিকা দেওয়ার চেয়ে বেশি লোককে মুখে ওষুধ দেওয়া সহজ হবে।