করোনাভাইরাস সংকটে মক্কা ছাড়া সৌদি আরবের অন্যান্য শহর থেকে ধীরে ধীরে কারফিউ প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। রাজকীয় এক ফরমানে এ কথা জানিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর বাদশাহ সালমান। তিনি জানান, মক্কায় ২৪ ঘণ্টা কা্রফিউ বহাল থাকবে।

সৌদির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা স্পা জানিয়েছে, সকাল ৯টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত দোকানপাট খোলার অনুমতিও দেওয়া হবে। তবে সৌদিতে সেটা কার্যকর হবে আগামী ২৯ এপ্রিল থেকে ১৩ মে পর্যন্ত।

এদিকে রোববার সকাল পর্যন্ত সৌদি আরবে করোনায় ১৬ হাজার ২৯৯ জন আক্রান্ত এবং ১৩৬ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। জন হপকিন্স ইউনিভার্সিটির তথ্যানুসারে- উপসাগরীয় কোঅপারশেন কাউন্সিলের ৬ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ সংখ্যা।

করোনার ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হলে ২ এপ্রিল মুসলমানদের পবিত্র শহর মক্কা ও মদিনায় ২৪ ঘণ্টা কারফিউ জারি করা হয়। এ সময় অন্যান্য শহরেও ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে, এমন আশঙ্কায় উমরা পালনের ওপরও নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। আগামী জুলাই মাসের শেষ দিকে পবিত্র হজ্জ। করোনার কারণে আধুনিক ইতিহাসে প্রথমে বারের মতো সে হজ্জানুষ্ঠানও বাতিল হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। গত বছর সৌদি আরবে হজ্জ উপলক্ষে ২৫ লাখ মুসলমানের সমাগম ঘটেছিল। প্রতিটি মুসলমানই জীবনে একবার হলেও হজ্জপালন করতে আগ্রহী থাকে।

রাজকীয় ফরমানে বাদশাহ সালমান সামনে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে আরও জটিল ও কঠিন সংগ্রামের জন্য প্রস্তুত হওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন। ভাইরাসজনিত পরিস্থিতির শিকার সৌদি আরব আগামীতে অর্থনৈতিক সমস্যার মুখে পড়তে পারে বলে এখনই আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশ্বব্যাপী তেলের দামে বৃহৎ পতনের কারণে তেলসমৃদ্ধ অন্যান্য দেশগুলোকেও একই পরিস্থিতির মুখে পড়তে হতে পারে।