ভারতে করোনা রোগীর সংখ্যা ৫০ হাজার ছুঁই ছুঁই। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেব মতে, ভারতে মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৯ হাজার ৩৯১ জনে। এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৬৯৪ জনে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৯৫৮ জন এবং মৃতের সংখ্যা ১২৬ জন। 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে করোনাভাইরাসকে মোকাবেলা করতে স্পেশাল টার্স্ক ফোর্স গঠনের ঘোষণা দেন। এই সংবাদ সম্মেলনের প্রধান লক্ষ্য ছিল করোনাভাইরাস মোকাবেলায় প্রতিষেধক আবিষ্কার, নিরাময়ের জন্য ওষুধ আবিষ্কার ও ডায়াগনস্টিক পরীক্ষা নিরীক্ষার অগ্রগতি কতটুকু সে সংক্রান্ত তথ্যকে কেন্দ্র করে। সংবাদ সম্মেলন শেষে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রায় ৩০টি প্রতিষেধক  বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যার মধ্যে অনেকগুলো এখন ট্রায়ালে আছে।

ভারতে সবচেয়ে বেশি করোনা আক্রান্ত মহারাষ্ট্রে। এখানে সর্বমোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ হাজর ৫২৫ জন, যার মধ্যে নতুন আক্রান্ত ৯৮৪ এবং মোট মৃতের সংখ্যা ৬১৭ জন।

দিল্লিতে নতুন ৬৪ জনসহ সর্বমোট ৫ হাজার ১০৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। তামিলনাড়ু রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ৫০৮ জন। এ নিয়ে এই রাজ্যে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৪ হাজার অতিক্রম করেছে। দেশটির স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মতে, সবজি ও ফলের বাজার থেকে এই ভাইরাস অধিকমাত্রায় ছড়াচ্ছে।

ভারতে করোনাভাইরাস থেকে সেরে উঠার হার ২৮ দশমিক ৭১ শতাংশ, যা অনেকটা সন্তোষজনক। এখন পর্যন্ত সর্বমোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৪ হাজার ১৮৩ জন।

ভারতে তৃতীয় ধাপের লকডাউন চলছে, সেখানে যেসব দোকান পাট অনেকটা ঝুঁকিমুক্ত তা খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে সব ধরনের যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি রয়েছে। স্কুল, কলেজ, রেস্টুরেন্ট, সিনেমা হল, জিম বন্ধ রয়েছে। সামাজিক,ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক কিংবা রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সূত্র: এনডিটিভি