১০০ বছর আগের স্প্যানিশ ফ্লু নিয়ে ভাবছে ভারত

প্রকাশ: ১৫ জুন ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

করোনাভাইরাস আর স্প্যানিশ ইনফ্লুয়েঞ্জা। ভিন্ন নামে দুটি মহামারি। সময়ের পার্থক্য ১০০ বছর। ১৯১৮ সালে বিশ্ববাসীকে যেতে হয়েছিল যে আতঙ্কের মধ্য দিয়ে ১০০ বছর আবারও সে আতঙ্কে দিন কাটছে পৃথিবীর মানুষদের। কোনোভাবেই দমানো যাচ্ছে না চীন থেকে বেরিয়ে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসকে। আক্রান্তের সংখ্য পৌনে এক কোটি। এ পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৪ লাখের বেশি মানুষ। ১৯১৮ সালে, বিশেষ করে ব্রিটিশ উপনিবেশগুলোতে প্রাদুর্ভাব ঘটেছিল স্প্যানিশ ইনফ্লুয়েঞ্জার। সে মহামারি মোকাবেলায় ব্রিটিশরা কী করার চেষ্টা করেছিল, সে ব্যাপারে খোঁজখবর নেওয়ার কথা বলেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। খবর ইন্ডিয়া টাইমসের।

ভারতের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন বা ইউজিসির পক্ষ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে অনুরোধ করা হয়েছে, তারা যেন ১৯১৮ সালের মহামারির সময়কে গবেষণা করে দেখে। সে সময় ঔপনিবেশিক ভারতের ব্রিটিশ সরকার মহামারি কীভাবে সামলেছিল আর অর্থনীতিতেই বা মহামারির প্রভাব কেমন ছিল, এ দু’টি বিষয়ে স্টাডি রির্পোট চেয়েছে ইউজিসি। এর জন্য ৩০ জুনের মধ্যে ইচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয় বা কলেজগুলোকে এ বিষয়ে প্রস্তাব জমা দিতে বলা হয়েছে।

ঔপনিবেশিক ভারতে বাংলায় বিভিন্ন সময় কলেরা, গুটি বসন্ত, ম্যালেরিয়ার প্রাদুর্ভাব মহামারির চেহারা নিয়েছিল। গ্রামের পর গ্রাম এমনকী শহর উজাড় করে দিয়েছিল। ১৯১৮ সালে তৎকালীন বোম্বাইতে প্রথম এই স্প্যানিশ ফ্লুয়ের প্রকোপ ধরা পড়ে। পরে তা ছড়িয়ে পড়ে ভারতের অন্যান্য রাজ্যেও। তৎকালীন স্যানিটারি কমিশনার একে জাতীয় বিপর্যয় অ্যাখ্যা দেন। প্রায় ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ এই ফ্লুয়ের দাপটে ভারতে মারা যায়। ১৯১৮ সালে মে থেকে জুলাইয়ের মধ্যে মুম্বাইতে অপর্যাপ্ত বৃষ্টি এবং কলকাতায় তীব্র আর্দ্রতার জন্য প্রকোপ মহামারিতে পরিণত হয়। এর প্রবল খাদ্য সঙ্কট, দারিদ্র এবং দুর্ভিক্ষের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল।