ম্যাপ দেখে হেঁটে পাকিস্তানি প্রেমিকার কাছে যাওয়ার চেষ্টা

প্রকাশ: ১৭ জুলাই ২০২০     আপডেট: ১৭ জুলাই ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

প্রেমের টানে  সীমান্ত পেরিয়ে যেতে চেয়েছিলেন প্রেমিকার কাছে। সেজন্য গুগুল ম্যাপকে সঙ্গী  করে ভারতের মহারাষ্ট্র থেকে পাকিস্তানের উদ্দেশে পাড়ি দিছিলেন এক যুবক।উড়োজাহাজ, কিংবা বাস-ট্রেনে চেপে নয়, ১২০০ কি.মি.  পায়ে হেঁটেই  সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে পৌঁছে যাওয়ার চেষ্টা করেছিলেন তিনি। কিন্তু বাধ সাধে বিএসএফ।

২০ বছর বয়সী ওই যুবকের নাম সিদ্দিকি মহম্মদ জিশান। 

ভারতের সংবাদমাধ্যম জানায়, মহারাষ্ট্রের ওসামাবাদের বাসিন্দা সিদ্দিক্কি মহম্মদ জিশান পাকিস্তানের করাচির এক যুবতীর প্রেমে পড়েছিলেন।ফেসবুকে দুজনের পরিচয় হয়। এরপর হোয়াটসঅ্যাপেও দিনভর কথা হত তাদের। কিন্তু সামনাসামনি দেখা হয়নি তাদের। সেই দূরত্ব ঘোচাতে  বাইক নিয়ে বেরিয়ে পড়েছিল মহারাষ্ট্রের ওই যুবক। ভরসা গুগল ম্যাপ। ১২০০ কিলোমিটার পথ উজিয়ে এসে হাজিরও হয়েছিলেন গুজরাটের কচ্ছ এলাকায়। পরিকল্পনা ছিল সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে পৌঁছে যাওয়ার। দীর্ঘ রাস্তা পেরিয়ে আসার পর এই এলাকায় যুবকের শরীরে পানিশূণ্য হয়ে যায়। তিনি জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এসময় জওয়ানরা তাকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করেন।

কয়েকদিন ধরে নিখোঁজ থাকায় জিশানের বাবা-মা মহারাষ্ট্র পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছিলেন। যুবকের মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে খোঁজ শুরু হয়। দেখা যায়, যুবকের মোবাইল নেটওয়ার্ক গুজরাটের ভারত-পাকিস্তান সীমান্তের কাছাকাছি রয়েছে। এরপরই বিএসএফের সাহায্য চাওয়া হয়। এলাকায় নিয়মমাফিক তল্লাশি চালানোর সময় অচেতন অবস্থায় জিশানকে উদ্ধার করা হয়। তার থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে মিলেছে জিশানের মোটর বাইক। জিশানের কাছে থাকা আধার কার্ড থেকে তার পরিচয় জানতে পেরে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করে বিএসএফ। রুটিন জেরার পর তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।