গ্রিস ও মিশরের মধ্যে সম্পন্ন নতুন সমুদ্র চুক্তিকে কোনো পাত্তা দিচ্ছে না তুরস্ক। শুক্রবার দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, এটি একটি অকেজো চুক্তি। এর কোনো মূল্য নেই।

তিনি বলেন, পূর্ব ভূমধ্যসাগরে অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোর মধ্যে এ বিষয়ে কোনো প্রভাব ফেলেনি। শুক্রবার ইস্তাম্বুলের আয়া সোফিয়া মসজিদে জুমার নামাজ শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। খবর রয়টার্সের।

এর আগে বৃহস্পতিবার মিসর ঘোষণা করেছে, তারা পূর্ব ভূমধ্যসাগরে সমুদ্রসীমা নির্ধারণের বিষয়ে গ্রিসের সাথে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, এই চুক্তি সত্ত্বেও ওই এলাকায় তার দেশ তেল এবং গ্যাস অনুসন্ধানের কাজ আবার শুরু করবে।

তিনি বলেন, জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলের অনুরোধে তুরস্ক ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের কাজ আপাতত স্থগিত রেখেছিল। কিন্তু এখন তা আবার শুরু করা হবে।

এরদোয়ান বলেন, আমি জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেলকে বলেছি, আপনি যদি গ্রিস এবং অন্যদের ওপর বিশ্বাস রাখেন তাহলে রাখতে পারেন। কিন্তু আমি তাদের ওপর বিশ্বাস রাখতে পারছি না। অতএব আমি নতুন করে ভূমধ্য সাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের কাজ শুরু করব এবং সেটি খুব শিগগিরই শুরু হবে।

এদিকে গত বৃহস্পতিবার মিশর এবং গ্রিসের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় একটি সামরিক চুক্তি সই হয়েছে। তুরস্ক বলছে, এই চুক্তির মাধ্যমে মূলত লিবিয়ার তেল এবং গ্যাস সম্পদের অধিকার থেকে বঞ্চিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, মিশরের সঙ্গে গ্রিসের কোন সমুদ্র সীমা নেই। তারপরও ওই চুক্তি করা হয়েছে যার কোনো আইনগত ভিত্তি নেই। তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে তথাকথিত চুক্তি নিয়ে তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে যে গ্রিস এবং মিসর পারস্পরিক সমুদ্র সীমার কোন অংশ নেই এবং আঙ্কারা এই চুক্তিকে বাতিল বলে ঘোষণা করেছে।