ভারতের কেরালায় বিমান দুর্ঘটনায় উদ্ধার অভিযানে গিয়ে অন্তত ২২ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শুক্রবার তাদের করোনা আক্রান্তের কথা নিশ্চিত করেছেন কেরালার মাল্লাপুরাম হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। 

গত ৮ আগস্ট ১৮৪ জন যাত্রী নিয়ে দুবাই থেকে আসা এয়ার ইন্ডিয়ার ওই বিমানটি অবতরণের সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়ে। এতে পাইলটসহ ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছিল। বিমানটিতে দুবাইয়ে করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে আটকে পড়া ভারতীয়দের ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। খবর এনডিটিভির 

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে বিভিন্ন দেশে আটকে পড়া ভারতীয়দের কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে ‘বন্দে ভারত মিশনের’ অধীনে বিশেষ বিমানে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। দুবাই থেকে এমনই যাত্রী নিয়ে আসা বিমানটি দুর্ঘটনার শিকার হলে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে উদ্ধার অভিযান চালানো হয়। ওই সময় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছিলেন কেরালার গভর্নর আরিফ মোহাম্মদ খান, মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন, রাজ্য স্বাস্থ্য মন্ত্রী কে কে শৈলজা, কেন্দ্রীয় বিমানমন্ত্রী হরদ্বীপ সিং পুরি, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ভি মুরালীধরনসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা। কেরালার মাল্লাপুরাম মেডিকেলের এক কর্মকর্তা জানান, ‘উদ্ধার অভিযানে অংশ নেওয়া বাহিনীর সদস্য ও অন্যদের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছিল। তাদের পরীক্ষা করে ২২ জনের দেহে করোনা শনাক্ত হয়েছে।’ 

ওই ঘটনার সংস্পর্শে আসা অন্তত ৬০০ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। তবে মন্ত্রী বা উর্ধ্বতনদের কেউ আক্রান্ত হয়েছেন কিনা, তা স্পষ্ট করা হয়নি। কেরালায় এ পর্যন্ত ৩৯ হাজার ৭০৮ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বৃস্পতিবার একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ১হাজার ৫৪৬ জন।