এপ্রিল থেকে আগস্ট এই পাঁচ মাসে চাকরি হারিয়েছেন ভারতের ২ কোটি ১০ লাখ মানুষ। করোনাকালে বিপুল সংখ্যক মানুষের কর্মহীন হয়ে পড়ার এ চিত্র উঠে এসেছে সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমি (সিএমআইই) নামের একটি পরামর্শক সংস্থার পরিসংখ্যানে। সমীক্ষায় দেখা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থবছর শেষে ভারতে চাকরিজীবীর সংখ্যা ছিল ৮ কোটি ৬০ লাখ। আগস্টে তা নেমে এসেছে ৬ কোটি ৫০ লাখে। 

অবশ্য এ জন্য যে শুধু করোনা মহামারিজনিত লকডাউনই দায়ী, তা নয়। মহামারি দেখা দেয়ার আগে থেকেই ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ যাচ্ছিল। করোনা তাতে ভালভাবেই আঁচড় কেটেছে। চার দশকের মধ্যে জিডিপির আকার সবচেয়ে বেশি সঙ্কুচিত হয়েছে। আর তাতে কর্মহীন মানুষের সংখ্যা বেড়েছে ব্যাপকহারে।

সিএমআইই পরিচালিত জরিপের তথ্য অনুযায়ী, ভারতে ২০১৯-২০ অর্থবছরের শেষের তুলনায় গত জুলাইয়ে অসংগঠিত ক্ষেত্রে কাজের সংখ্যা যেখানে নিট ৮০ লাখ বেড়েছে, সেখানে শুধু লকডাউনের সময়েই বেতনভূক্ত চাকরির সংখ্যা কমেছে ১ কোটি ৮৯ লাখ বা ২২ শতাংশ!

অথচ এর আগের অর্থ বছরেও ছিল উল্টো চিত্র। তখন চাকরি বেড়েছিল এক দশমিক ৬ শতাংশ। অর্থনীতির অবস্থা নাজুক হয়ে পড়ায় ২০১৮-১৯ সালে ০.০১ শতাংশ। আর ২০১৯-২০ সালে কমেছে এক দশমিক ৮ শতাংশ। আর ২০১৬-১৭ সালের ৮.৬৩ কোটি চাকরি ২০১৯-২০ সালে কমে দাঁড়িয়েছে ৮.৬১ কোটিতে। সূত্র: আন্দবাজার