দুদেশের লড়াইয়ে আর্মেনিয়ার ২৮ সেনাসহ নিহত ৫৯

প্রকাশ: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০     আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

আজারবাইজান দাবি করেছে, তারা আর্মেনিয়ার একটি রাইফেল রেজিমেন্টকে ধ্বংস করেছে। মঙ্গলবার খোজাভান্দ অঞ্চলের ওই লড়াইয়ে আর্মেনিয়ার একজন শীর্ষ কমান্ডারও নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। রোববার দক্ষিণ ককেশাসের নাগার্নো-কারাবাখ অঞ্চলে নতুন করে দু’দেশের মধ্যে লড়াই শুরু হয়েছে। সোমবারের ওই লড়াইয়ে আর্মেনিয়ার ২৮ সেনাসহ মোট নিহতের সংখ্যা ৫৯ বলে জানা গেছে। খবর এএফপির। 

আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আজারবাইজানের সেনাবাহিনী হামলা চালিয়ে খোজাভান্দ অঞ্চলের আর্মেনিয়ান ৩য় মার্টুনি রাইফেলধারী সেনাদলকে ধ্বংস করে। দারগাহলি আরো জানান, এর ফলে আর্মেনিয়ান বাহিনী ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির মুখে পড়েছে। ওই রেজিমেন্টটি সম্পূর্ণভাবে পরাস্ত হয়েছে।

আরো এক শীর্ষ আর্মেনিয়ান সেনা কমান্ডারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এদিকে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ আর্মেনিয়া ও আজারবাইজানের মধ্যকার এ সংঘর্ষ বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে।

সাবেক সোভিয়েতভুক্ত এ দুটি দেশ ১৯৯০ সাল থেকেই আঞ্চলিক বিরোধে জড়িয়ে আছে। ২০১৬ সালে এসে তা মারাত্মক রূপ নেয়। এ প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস অবিলম্বে এই সংঘাত বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, দুই দেশের মধ্যে নাগরনো কারাবাখ নিয়ে রোববার নতুন করে সংঘর্ষ শুরু হয়। ব্যাপক গোলাগুলির পর পরিস্থিতি যুদ্ধাবস্থায় পৌঁছায়। এ প্রেক্ষাপটে আর্মেনীয় সরকার সামরিক আইন জারি করে নিজ জনগণকে যুদ্ধের জন্যে প্রস্তুত হতে বলেছে। কিন্তু আজারবাইজান বলছে, আর্মেনিয়ার বাহিনীই প্রথমে তাদের সেনা ও বেসামরিক স্থাপনা লক্ষ্য করে গোলাবর্ষণ করে।