সারাক্ষণ প্রার্থনা, ট্রাম্প যেন ফের নির্বাচিত না হন: ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশ: ১৪ অক্টোবর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ শতায়েহ বলেছেন, আমার প্রতিদিনের প্রার্থনা, ট্রাম্প যেন ফের যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হতে না পারেন। তিনি যদি আবার প্রেসিডেন্ট হন, সেটা হবে সব ফিলিস্তিনি মানুষের জন্য সবচেয়ে বড় দুর্ভাগ্য। এমনকি সারা পৃথিবীর জন্য তিনি একটা দুর্গ্রহ হিসেবে আবির্ভূত হবেন।

তার মতে, ৩ নভেম্বর নির্বাচনে ট্রাম্প যদি আবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে পুনর্নির্বাচিত হন, তাহলে তার বিরূপ ফল পৃথিবীর সব মানুষকেই ভোগ করতে হবে। খবর আল জাজিরার।

মঙ্গলবার ইউরোপীয় সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এক বৈঠকে তিনি এই মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, ‘গত চারবছরে ট্রাম্পের নানা ধরনের ভূমিকায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ফিলিস্তিনিরা। আমাদের যদি আরো চার বছর ট্রাম্পের সঙ্গে থাকতে হয়, তাহলে খোদা আমাদের ফিলিস্তনিদের এবং সমস্ত পৃথিবীবাসীকে রক্ষা করুন।’

ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী এর আগে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পার্লামেন্টের সঙ্গে ভার্চুয়াল মিটিংয়েও এমন মন্তব্য করেছিলেন। পরে নিজের ফেসবুকেও তা পোস্ট হিসেবে প্রকাশ করেন।

মোহাম্মদ শতায়েহ বলেন, যদি যুক্তরাষ্ট্রের পরিস্থিতি পরিবর্তিত হয়, তাহলে সেটা ফিলিস্তিন-ইসরায়েল সম্পর্কেও পরিবর্তনের সূচনা করবে। তাছাড়া ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন নির্বাচিত হলে ফিলিস্তিন-যুক্তরাষ্ট্র দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কেও ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটবে বলে তার ধারণা। তবে ফিলিস্তিনিরা যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে কখনো স্পষ্টরূপে কোনো পক্ষ নেয় না।

ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্য আসলে গত চার বছরের ফিলিস্তিন-ইসরায়েলের বিষয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপে হতাশার প্রতিফলন। ট্রাম্প প্রশাসন একের পর এক এমন কিছু বিতর্কিত পদক্ষেপ নিয়েছে, যা ফিলিস্তিনিদের স্বার্থের প্রতিকূলে গেছে। বিশেষ করে জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ট্রাম্পের স্বীকৃতি দারুণ ক্ষুব্ধ করেছে তাদের। এমনকি তারা তেলআবিব থেকে জেরুজালেমে নিজেদের দূতাবাস পর্যন্ত স্থানান্তরিত করেছে। একই সঙ্গে জেরুজালেমকে যারা ভবিষ্যৎ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের রাজধানী হিসেবে দেখতে চাইছেন, তারা মধ্যপ্রাচ্যে শান্তিপ্রক্রিয়ায় মধ্যস্থতাকারী হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের আন্তরিকতা নিয়েও প্রশ্নোন্মুখ হয়ে উঠেছেন।