ইয়েমেনে সরকার ও বিদ্রোহীদের বন্দি বিনিময়

প্রকাশ: ১৭ অক্টোবর ২০২০     আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২০   

অনলাইন ডেস্ক

ইয়েমেনে যুদ্ধরত পক্ষগুলোর মধ্যে বন্দি বিনিময় সম্পন্ন হয়েছে। গত পাঁচ বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধে সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোর মধ্যে এটাই সবচেয়ে বেশি বন্দি বিনিময়ের ঘটনা। সৌদি সমর্থিত সরকার ও ইরানসমর্থিত হুতি বিদ্রোহীদের মধ্যে সর্বশেষ বন্দিবিনিময়ে ১০০০-এর বেশি লোক মুক্তি পেয়েছে।

শুক্রবার ওই বন্দি বিনিময় সম্পন্ন হওয়ার পর হুতি বিদ্রোহীরা বলেছে, এই প্রক্রিয়ায় ৬৭১ জন বন্দি রাজধানী সানায় পৌঁছেছে। খবর আল জাজিরার।

জাতিসংঘের পৃষ্ঠপোষকতায় স্টকহোম অ্যাগ্রিমেন্টের আওতায় ২০১৮ সালে বন্দি বিনিময়ের এই প্রক্রিয়া শুরু হয়। গত মাসে সুইজারল্যান্ডে জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় ইয়েমেনের সরকার ও হুতি বিদ্রোহীদের মধ্যে সংলাপের পর উভয় পক্ষের প্রতিনিধিরা বন্দিবিনিময়ের বিষয়টা চূড়ান্ত করে।

বিদ্রোহীদের একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা আবদেল আল-মোরতাদা বলেন, দু’পক্ষ আরো বন্দি বিনিময়ে সম্মত হয়েছে। জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় তার প্রক্রিয়া নিয়ে আবার আলোচনায় বসবে তারা।

জাতিসংঘ মহাসচিব আন্তনিও গুতেরেস এই বন্দিবিনিময়ে স্বাগত জানিয়েছেন। তিনি স্টকহোম অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়নে এটাকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তিনি সংশ্লিষ্ট পক্ষগুলোকে দেশব্যাপী যুদ্ধবিরতি ঘোষণা দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, অর্থনৈতিক ও মানবিক সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার জন্য দুই পক্ষকেই এক যোগে কাজ করতে হবে। তিনি সবগুলো দলকে বৈঠকে বমে মহাসচিবের একজন মুখপাত্র এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।

মুক্তিপ্রাপ্ত বন্দিদের ট্রান্সপোর্টসহ অন্যান্য সহায়তা দেয়া আন্তর্জাতিক রেডক্রস সংস্থা জানিয়েছে, পাঁচটি ভিন্ন ভিন্ন শহর থেকে বন্দিদের আনা নেয়ার কাজ শুরু হয়েছে।