যুক্তরাষ্ট্রে দৈনিক করোনাভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা আবারও রেকর্ড পরিমাণে বৃদ্ধি পেয়েছে। স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, শুক্রবার নতুন করে দেশটিতে আরও ৮৩ হাজারেও বেশি মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সার্জন জেনারেল জেরোম অ্যাডামস সতর্ক করে বলেছেন, দেশটির হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। তবে উন্নত চিকিৎসাসেবার কারণে আগের চেয়ে মৃত্যুর হার কমেছে। খবর বিবিসির

এদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, করোনা মহামারির কারণে উত্তর গোলার্ধে অবস্থিত দেশগুলো ভয়াবহ সঙ্কটের মধ্যে রয়েছে।

সংস্থাটির প্রধান টেড্রোস অ্যাধনম ঘেরবাইয়াসস জানিয়েছেন, আগামী কয়েক মাস খুব কঠিন হতে যাচ্ছে। কিছু দেশ মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

কোভিড ট্র্যাকিং প্রকল্প অনুসারে, মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকেই এ পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে ৮০ লাখেরও বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। দেশটিতে ১৭ জুলাইয়ে সর্বশেষ সর্বোচ্চ ৭৬ হাজার ৮৪২ জনের দেহে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়। শুক্রবার আক্রান্তের সংখ্যা সেই রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে। জুলাইয়ের পর গত সাত দিনে দেশটিতে ৪ লাখ ৪১ হাজারেরও বেশি মানুষের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে।

দ্বিতীয় ঢেউয়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি ছড়িয়েছে দেশটি মধ্যপশ্চিমাঞ্চলে। বিশেষ করে নর্থ ডকোটা, মন্টানা এবং উইসকনসিনের মতো রাজ্যে এ সংক্রমণ বেশি শনাক্ত হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য ওহিওতে তৃতীয় দিনের মতো দৈনিক রেকর্ড পরিমাণে মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

ইলিনয় এবং ইন্ডিয়ানাসহ এই অঞ্চলের অন্যান্য স্থানেও শুক্রবারে তৃতীয় দিনের মতো রেকর্ড পরিমাণে করোনাভাইরাসের রোগী শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে, দেশটির দক্ষিণ-পশ্চিমের উটাহ রাজ্যেও এ পর্যন্ত সবেচেয়ে বেশি করোনা সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে।

আগামী ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে করোনাভাইরাস মহামারি নিয়ন্ত্রণ একটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে পরিণত হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এবং ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন বৃহস্পতিবার বিতর্ক চলাকালীন এই বিষয়টি নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। দু'জন প্রার্থী করোনাভাইরাস নিয়ে আলাদা মতামত ব্যক্ত করেন।

শুক্রবার ফ্লোরিডায় একটি সমাবেশে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তার সমর্থকদের খুব শিগগিরই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নির্মূলের প্রতিশ্রুতি দেন। অন্যদিকে বাইডেন ভোট পাওয়ার জন্য ভয় দেখিয়ে মহামারির এই সঙ্কটকে বাড়িয়ে তোলার অভিযোগ করেন।

গত ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনার অস্তিত্ব ধরা পড়ে। এরপর তা ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বজুড়ে। এখন পর্যন্ত আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যায় যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বে প্রথম স্থানে রয়েছে।



বিষয় : যুক্তরাষ্ট্র করোনা সংক্রমণ

মন্তব্য করুন