যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬ তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন। তার এই বিজয়ের পেছনে সবচেয়ে বড় অবদান নারী ভোটারদের।

ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল ও এনবিসি নিউজের এক যৌথ টেলিফোন জরিপের ফলাফলে দেখা গেছে, এবারের নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী এবং বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে রায় দিয়েছে ৩৫ শতাংশ নারী এবং ৫০ শতাংশ পুরুষ। যেখানে বাইডেনের পক্ষে রায় দিয়েছে ৪৩ শতাংশ পুরুষ এবং ৫৮ শতাংশ নারী।

১৯২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের নারীরা ভোটাধিকার পায়। তবে সেসময় তেমন বেশি ভোটই দিতে যাননি তারা। ১৯৮০ সালের পর থেকে তারা ভোট দেওয়ার প্রতি আগ্রহী হয়ে ওঠেন। 

ক্যালিফোর্নিয়া ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির রাজনীতি বিজ্ঞানের অধ্যাপক ডিপ্লাও গোউল্ড বলেন, ‘এখন নারীরাই ভোটের মাঠের জয়-পরাজয় নির্ধারণ করেন।’

অ্যারিজোয়ানা অঙ্গরাজ্যের মারিকোপা কাউন্টির রিপাবলিকান কনসালটেন্ট লরনা রোমেরো জানান, রিপাবলিকান হিসেবে রেজিস্টার্ড নারীদের একটি বড় অংশের ভোট হারিয়েছেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, এটা একজন প্রেসিডেন্টের আচরণ হতে পারে না। কমান্ডার-ইন-চিফের কাছ থেকে তারা এমন আচরণ প্রত্যাশা করেন না।

টানটান উত্তেজনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন জো বাইডেন। ভোটগ্রহণের চারদিন পর শনিবার পেনসিলভানিয়ার ২০ ইলেক্টোরাল ভোট পাওয়ায় জয় নিশ্চিত হয় তার।

জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ২৭০ ইলেক্টোরাল কলেজ ভোটের চেয়ে ২০ ভোট বেশি পেয়েছেন বাইডেন। ৫৩৮ ইলেক্টোরাল ভোটের মধ্যে তিনি পেয়েছেন ২৯০ ভোট। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পেয়েছেন ২১৪ ভোট।