দ্বিতীয়বার সন্তান-সম্ভাবা হয়েছিলেন ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল। কিন্তু অকালে গর্ভপাতের যে অসহনীয় দুঃখ, সেটা নীরবে সইতে হয়েছে তাকে। গত জুলাইয়ে তার জীবনেও এমন একটি দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন তিনি নিজেই।

নিউইয়র্ক টাইমসে নিজের লেখা একটি মতামতে মেগান বলেছেন, তার প্রথম সন্তান মাউন্টব্যাটেন উইন্ডসর আর্চি হ্যারিসনের ডায়াপার পরিবর্তন করার সময় হঠাৎ তিনি ‘প্রচণ্ড ব্যথা’ অনুভব করেন।

মেগান লেখেন, আমি তীব্র ব্যথা নিয়ে মেঝেতে নামলাম। হ্যারির হাত ধরে রেখেছিলাম। আমাদের দুইজনকে শান্ত রাখার চেষ্টা করা হলো, কিন্তু আমার বোধের সম্পূর্ণ বিপরীত ছিল। কিছুই ঠিক লাগছিল না তখন।

তিনি লেখেন, আমি জানতাম, আমার প্রথম সন্তানকে যেভাবে আঁকড়ে ধরেছি, ঠিক সেভাবেই দ্বিতীয় সন্তানটিকে হারাতে বসেছি।

সিএনএনের খবরে বলা হয়েছে, সাবেক অভিনেতী ও ব্রিটেনের রাজপরিবারের সদস্য মেগান মার্কেল তার দ্বিতীয় সন্তান হারানোর দুঃখ বর্ণনা করেছেন নিউইয়র্ক টাইমসের একটি লেখায়। এবং এ থেকে তিনি বছরটিতে ঘটে যাওয়া নিজের খুবই ব্যক্তগত জীবনের কষ্ট শেয়ার করেছেন।

মেগান লেখেন, আমি হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে আমার স্বামীর হাত ধরে রেখেছিলাম। আমি তার হাতের তালুর স্বাদ অনুভব করেছি। হাতের মধ্যে চুমু খেয়েছিলাম। শীতল সাদা দেয়ালের দিকে তাকিয়ে আমার চোখের পাতা ঝলমলে হয়ে গিয়েছিল। আমি কল্পনা করতে চেষ্টা করেছি, আমরা ‘ভালো আছি’।

এরপর তিনি একটি রেফারেন্সও দেন। লেখেন, ২০১৯ সালের শেষের দিকে একটি রাজকীয় সফরের সময় সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে তিনি অসুস্থ বোধ করছিলেন। ওই সাক্ষাত্কারের সাংবাদিক হয়তো টের পেয়েছিলেন। তিনি আমাকে প্রশ্ন করেছিলেন ‘আপনি ঠিক আছেন?’

এর আগে গত বছরের ৬ মে প্রথম সন্তান জন্ম নেয় মেগান ও ডিউক অব সাসেক্স প্রিন্স হ্যারির। এদিকে, এ বছরের জানুয়ারিতে রাজপরিবার ছেড়ে গিয়ে ক্যালিফোর্নিয়ায় বসবাস শুরু করেন মেগান ও হ্যারি। অনেকটা গণমাধ্যমের আড়ালেও ছিলেন তারা।

মন্তব্য করুন