নাইজেরিয়ায় একটি আবাসিক মাধ্যমিক স্কুলে বন্দুকধারীদের হামলা হয়েছে। এতে স্কুলটির কয়েকশ' শিক্ষার্থী নিখোঁজ হয়ে গেছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় উত্তর-পশ্চিম নাইজেরিয়ার কাটসিনা রাজ্যে এ ঘটনা ঘটে।

গভর্নমেন্ট সায়েন্স সেকেন্ডারি স্কুলটিতে আট শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। তবে এ ঘটনায় কোনো শিক্ষার্থী নিহত বা আহত হয়েছে কি-না, সে খবর পাওয়া যায়নি এখনও।  খবর বিবিসির

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, শুক্রবার সন্ধ্যায় হঠাৎ বন্দুকধারীরা মোটরসাইকেলে করে এসে এলোপাতাড়ি গুলি করতে শুরু করেন। এ সময় লোকজন ছুটোছুটি শুরু করে দেন। অনেক শিক্ষার্থীও ভয়ে পালিয়ে যায়।

শনিবার দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তাদের সঙ্গে হামলাকারীদের গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। পরে হামলাকারীরা বনের মধ্যে পালিয়ে যান। তবে এ হামলার মূল কারণ জানতে পারেনি তারা।

নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি এই হামলার নিন্দা প্রকাশ করেছেন। এবং কতজন নিখোঁজ রয়েছে, তা জানতে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পূর্ণ নিরীক্ষা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন। যেসব অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের বাড়িতে নিয়ে গেছেন, তাদের স্কুল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করার জন্যও বলেছেন প্রেসিডেন্ট।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, স্কুলে প্রবেশের আগে প্রথমে স্কুলের নিরাপত্তাকর্মীরা হামলাকারীদের বাধা দেন। এরপর পুলিশ হাজির হলে তাদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে।

এক বিবৃতিতে পুলিশ জানিয়েছে, হামলাকারীদের সঙ্গে গুলি বিনিময়ে এক পুলিশ কর্মকর্তা গুলবিদ্ধি হয়েছেন। তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এ সুযোগে শিক্ষার্থীরা স্কুলের দেয়াল টপকে নিরাপদে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। শুরুতে ২০০ জন শিক্ষার্থী নিখোঁজ ছিল। পরে তারা ফিরে আসে।

স্থানীয়রা বিবিসিকে জানায়, বন্দুকধারীরা অনেক শিক্ষার্থীকে ধরে নিয়ে গেছে। বালকদের আবাসিক ওই স্কুলটিতে গুলির শব্দ শুনতে পেয়েছে তারা। ঘণ্টাখানেকের বেশি সময় ধরে গুলি চলে।

মন্তব্য করুন