করোনার ভ্যাকসিন গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। ‘স্পুটনিক-৫’ গ্রহণ করবেন তিনি।

প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ রোববার দেশটির রাষ্ট্রীয় একটি টেলিভিশনে একথা জানান বলে জানিয়েছে রয়টার্স।

পেসকভ বলেন, প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন; তিনি ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন। তিনি এখন আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হওয়ার অপেক্ষায় আছেন।

গত আগস্টে রাশিয়া প্রথম ‘স্পুটনিক-৫’ ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেয়। এটি বিশ্বে রাষ্ট্রীয় অনুমোদন পাওয়া প্রথম করোনার ভ্যাকসিন। রাশিয়ার ভাষ্য, তাদের উদ্ভাবিত ‘স্পুটনিক-৫’ টিকাটি ৯৫ শতাংশ কার্যকর।

রাশিয়ায় ডিসেম্বরে স্বেচ্ছাসেবামূলক ভ্যাকসিন প্রয়োগ শুরু হয়েছে। এরইমধ্যে চলছে এর কার্যক্রম।

৬৮ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট পুতিনের ভ্যাকসিন গ্রহণের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক আরও কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমও।

পুতিন বলেছেন, রশিয়ার উৎপাদিত ভ্যাকসিন কার্যকরী ও নিরাপদ। ভ্যাকসিন গ্রহণ না করার কোনও কারণ দেখছি না। পর্যাপ্ত পরিমাণে ভ্যাকসিন আসলেও তিনি তা গ্রহণ করবেন।

করোনার প্রাদুর্ভাব শুরুর পর মূলত অনলাইন মাধ্যমেই নানা রাষ্ট্রীয় কাজে অংশ নিয়েছেন পুতিন। দেশের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধিসহ বিভিন্ন বিষয়েও কঠোর হতে দেখা গেছে তাকে। গত আগস্টে যখন করোনার টিকার ট্রায়াল শুরু হয়; তখন তার এক মেয়ের সেই ট্রায়ালে অংশ নেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন পুতিন।