ঢাকা বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

জান্তার সঙ্গে শান্তি সংলাপে বসছে না ঐক্য সরকার

মিয়ানমার পরিস্থিতি

জান্তার সঙ্গে শান্তি সংলাপে বসছে না ঐক্য সরকার

ছবি-সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশ: ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | ০৫:৩৫ | আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০২৩ | ০৫:৩৬

জান্তা সেনাদের সঙ্গে সশস্ত্র বিদ্রোহীদের রক্তক্ষয়ী লড়াই বন্ধে জাকার্তায় মিয়ানমারের বিবদমান সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনা হওয়ার কথা জানিয়েছিল ইন্দোনেশিয়া। গত সপ্তাহে দেশটি এক বিবৃতিতে বলেছিল, জাকার্তার মধ্যস্থতায় সংঘাত বন্ধে জান্তা সরকার, বিদ্রোহী ও বেসামরিক জাতীয় ঐক্য সরকার (এনইউজি) নিয়ে ‘অন্তর্ভুক্তিমূলক সংলাপ’ হতে চলেছে। কিন্তু সপ্তাহ না গড়াতেই সেই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছে এনইউজি। তারা বলছে, শর্ত পূরণ না হওয়া পর্যন্ত সামরিক জান্তার সঙ্গে সংলাপের কোনো পরিকল্পনা নেই। খবর ইরাবতির।

ইন্দোনেশিয়ার ওই বিবৃতি মিয়ানমারের গণতন্ত্রপন্থি গোষ্ঠীগুলোর মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি করেছে। কারণ, বিবৃতি বোঝায়– বিরোধীরা জান্তার সঙ্গে সংলাপে রাজি।

এনইউজির উপপররাষ্ট্রমন্ত্রী ইউ মো জাও বলেন, ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিটি বিভ্রান্তিকর। বিবৃতিতে এনইউজির নাম দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এতে ভুল বোঝাবুঝি এড়াতে বিবৃতি দিল এনইউজি। তিনি বলেন, ‘জান্তার সঙ্গে সংলাপ চাই– আমরা এমনটা কখনোই ইঙ্গিত দেইনি। গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার শর্ত পূরণ হলেই শুধু আলোচনা হতে পারে।’

এদিকে, মিয়ানমারের ব্যবসায়ীরা জনিয়েছেন, গত সপ্তাহে উত্তর শান রাজ্যে চীনের সীমান্ত গেট জিন সান জিয়াওয়ে জান্তা সেনাদের ওপর হামলায় ১০০টিরও বেশি পণ্যবাহী ট্রাক ধ্বংস হয়েছে। এতে ক্ষতি ১ কোটি ৪০ লাখ ডলারের বেশি। গত বৃহস্পতিবারের ওই হামলায় সেনাদের ওপর বোমা ফেলার জন্য ড্রোন ব্যবহার করা হয়েছিল।  

গত তিন দিনে বিদ্রোহীদের হামলায় ৬৪ জান্তা সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে পিপলস ডিফেন্স ফোর্স (পিডিএফ) ও জাতিগত সশস্ত্র সংগঠন (ইএও)। শান রাজ্য এবং সাগাইং এবং মান্দালয় অঞ্চলে এসব হামলা হয়। এ সময় ৩৮ সেনাকে বন্দিও করা হয়েছে বলে জানায় বিদ্রোহীরা। 

২০২১ সালে সামরিক অভ্যুত্থানের পর থেকে সামাজিক ও রাজনৈতিক চরম সহিংতার মধ্যে রয়েছে মিয়ানমার।

আরও পড়ুন

×