সমর্থকদের প্রতি প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেওয়া বক্তব্যের ভিডিও সরিয়ে নিয়েছে ফেসবুক, টুইটার ও ইউটিউব।

ট্রাম্প তার সমর্থকদের বাড়ি ফিরে যেতে বললেও তার বক্তব্যে আবারো নির্বাচনে কারচুপির অসত্য অভিযোগ তুলেছেন।

ফেসবুক ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য সম্পর্কে জানিয়েছে, আমরা সেটি সরিয়ে নিয়েছি কারণ আমাদের বিশ্বাস তা চলমান সহিংসতা স্তিমিত করার চেয়ে সহিংসতা বাড়ানোতে ভূমিকা রাখবে। 

সহিংসতা শুরু হওয়ার আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ন্যাশনাল মল চত্বরে তার সমর্থকদের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচনে কারচুরি করা হয়েছে।

ঘণ্টাখানেকের মধ্যে যখন ক্যাপিটল ভবনের ভেতরে ও বাইরে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে, তখন ট্রাম্প আবারো একটি ভিডিও প্রকাশ করেন এবং আবারো নির্বাচনে কারচুপির অসত্য অভিযোগ তোলেন।

ইউটিউব জানিয়েছে, তারা ভিডিওটি সরিয়ে নিয়েছে কারণ সেটি ‘নির্বাচনে কারচুপি সংক্রান্ত তথ্য ছড়ানোর নীতি’ ভঙ্গ করেছে।

টুইটার শুরুতে ট্রাম্পের ভিডিও সরিয়ে না নিলেও তার অ্যাকাউন্টের টুইট, রিটুইট, লাইক ও কমেন্ট করার ক্ষমতা বন্ধ করে দিয়েছে। পরে তারা ভিডিওটি সরিয়ে নেয়।

টুইটার জানিয়েছে, সহিংসতার সম্ভাবনা থাকায় আমাদের সিভিক ইন্টেগ্রিটি পলিসি অনুযায়ী আমরা এঙ্গেজমেন্ট সীমিত করছি।

উল্লেখ্য, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের বিক্ষোভের মুখে রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে দেশটির আইনসভা কংগ্রেসের ভবন ক্যাপিটল ভবন। বিক্ষোভ ঠেকাতে ফাঁকা গুলি এবং কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছে পুলিশ। এক পর্যায়ে অবরুদ্ধ করা হয় ভবন। এ ঘটনায় নিহত হয়েছেন চারজন। সূত্র: বিবিসি বাংলা।

বিষয় : ডোনাল্ড ট্রাম্প ফেসবুক ইউটিউব

মন্তব্য করুন