আর মাত্র কিছুক্ষণের মধ্যেই শপথ নেবেন যুক্তরাষ্ট্রের নব-নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। শপথ নেওয়ার জন্য ইতোমধ্যে বাইডেন ক্যাপিটল হিলে এসে পৌঁছে গেছেন।

এসময় তার সহধর্মিণী ড. জিল বাইডেনও সঙ্গে ছিলেন। বাইডেনকে শপথ বাক্য পাঠ করাবেন দেশটির প্রধান বিচারপতি জন রবার্টস।

বাইডেনের ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিসও তার স্বামী ডগ এমহফকে নিয়ে ক্যাপিটলের ন্যাশনাল মলে পৌঁছেছেন।

দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা, বিল ক্লিনটন ও জর্জ ডব্লিউ বুশ নতুন প্রেসিডেন্টের অভিষেক অনুষ্ঠানে যোগ দিতে ক্যাপিটলে এসেছেন। এছাড়া ট্রাম্পের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সও উপস্থিত আছেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে,  ক্যাপিটল হিলের পরিবেশ এখন খুব শান্ত ও গম্ভীর। কিন্তু মাত্র দুই সপ্তাহ আগে সেখানে ট্রাম্প সমর্থকরা হামলা করেছেন। ক্যাপিটল হিলের ভেতরে ঢুকে ভাঙচুর চালিয়েছেন। যাতে পাঁচজন নিহত হন।

জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট ও কমলা হ্যারিস ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ গ্রহণ করবেন বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১০টার দিকে।

শপথ বাক্য পাঠ করার পর ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে আসন গ্রহণ করবেন এবং তার অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে। যদিও শপথ অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর দিনভর আরও নানা আয়োজন চলতে থাকবে।

বাইডেনের শপথ বাক্য পাঠ করার ঠিক আগে কমলা হ্যারিস নিজের শপথ বাক্য পাঠ করে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণ করবেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথম আসন গ্রহণ করতে যাচ্ছেন তিনি।

খবরে বলা হয়েছে, দিনের মধ্যভাগে বাইডেন ও হ্যারিস শপথ বাক্য পাঠ করবেন। এরপর দিনের শেষ ভাগে হোয়াইট হাউসে যাবেন তিনি। আগামী চার বছরের জন্য সেটাই তার বাড়ি।

সাধারণত প্রেসিডেন্টের অভিষেক অনুষ্ঠান ঘিরে ব্যাপক নিরাপত্তার আয়োজন থাকে। কিন্তু গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটলে হামলার পর এবার নিরাপত্তা আয়োজন আরও জোরদার করা হয়েছে। অভিষেকের আগেই পুরো নগরী নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হয়েছে। নগরীর অনেক এলাকায় সর্বসাধারণের চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

দেশটির সিক্রেট সার্ভিস অভিষেক অনুষ্ঠানের নিরাপত্তার দায়িত্ব নিয়েছে। হাজার হাজার পুলিশের পাশপাশি ১৫ ‍হাজারের বেশি ন্যাশনাল গার্ড নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছেন।

মন্তব্য করুন