মার্কিন প্রেসিডেন্টের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট ফলো করেন সারা বিশ্বের টুইটার ব্যবহারকারীরাই। আবার প্রেসিডেন্টের সেই অ্যাকাউন্ট থেকেও ফলো করা হয় ১২ জনকে। কিন্তু তার মধ্যে তারকা মাত্র একজনই। তিনি একজন মডেল। আর এই মডেলকেই গত ৪ বছর ধরে ব্লক করে রেখেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ক্রিসি টেইজেন নামে ওই মডেলকে ফলো করা হয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডল দ্য প্রেসিডেন্ট অব দ্য ইউনাইটেড স্টেটস বা সংক্ষেপে ‘@পিওটিইউএস’(পোটাস) এর থেকে। এই মডেলকে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট কর্তৃক ফলোও করার পরই সারা বিশ্বের মানুষ জানতে উৎসুক হয়ে উঠেছেন কে এই ক্রিসি টেইজেন। খবর হিন্দুস্তান টাইমস।

গত বুধবার সকালে ক্রিসি টেইজেন নিজে টুইট করে ব্যাপারটি জানাতেই বিষয়টি প্রকাশ্যে আসে। জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরে বুধবার টেইজেন টুইট করে বলেন, “”হ্যালো @ জো বাইডেন আমাকে চার বছর ধরে প্রেসিডেন্ট ব্লক করে রেখেছেন, আমি কি ফলো পেতে পারি প্লিজ?”

এই টুইট সামনে আসার পরে খুব বেশি দেরি করেননি বাইডেন। কিছুক্ষণের মধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের অফিশিয়াল টুইটার হ্যান্ডল দ্য প্রেসিডেন্ট অব দ্য ইউনাইটেড স্টেটস বা সংক্ষেপে ‘@পিওটিইউএস’(পোটাস)-এর থেকে ফলো পান ক্রিসি টেইজেন।

এরপর অবশ্য নিজের উচ্ছ্বাস চেপে রাখেননি টেইজেন। তিনি লেখেন, “ওহ মাই গড! অবশেষে আমি রাষ্ট্রপতির টুইটগুলি দেখতে পাব এবং সম্ভবত কোনওরকম পরিবর্তন হবে না।''

প্রসঙ্গত বারবার ট্রাম্পকে টুইটারে তীব্র আক্রমণ করতেন টেইজেন। ফলে মার্কিন প্রেসিডেন্টের অফিশিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ব্লক ছিলেন টেইজেন। তবে বাইডেন রাষ্ট্রপতি হওয়ার পরই খুব দ্রুত বদলে যায় সেই পরিস্থিতি।