করোনা মহামারি কারণে গোটা বিশ্বে লাখ লাখ শিশু স্কুলে যেতে পারছে না। অনেকেই ঘরে থেকে লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহও হারিয়ে ফেলছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা এখনো নিরাপদ নয় মনে করছে না অনেক দেশ। এ অবস্থায় শিশুদের লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ ধরে রাখতে অভিনব এক উদ্যোগ নিয়েছে ভারতের প্রত্যন্ত অঞ্চলের একটি গ্রামের কর্তৃপক্ষ। মানুষজনের যাতায়তের জন্য সাধারণত রাস্তা ব্যবহার করা হলেও ভারতের মধ্যপ্রদেশের বেতুল জেলার সিমোরি গ্রামের একটি রাস্তা ব্যবহৃত হচ্ছে স্থানীয় শিশুদের জন্য। রাস্তাকেই ব্ল্যাকবোর্ড বা স্লেট হিসেবে ব্যবহার করে তাদেরকে শেখানো হচ্ছে লেখাপড়া।

ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিসের (আইএএনএস) তথ্য অনুযায়ী, কমিউনিটি ক্লাসটি চালাতে সহায়তা করছে স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থা। সাহায্য করছেন স্থানীয় শিক্ষকরাও। রাস্তাকে স্লেট হিসেবে ব্যবহার করে শিশুরা খেলাচ্ছলেই শিখছে অংক, ইংরেজির সাধারণ পাঠ। এছাড়া সংস্কৃতি ভাষায় গণণা, গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম, ফল, ফুল, সবজির নামসহ সাধারণ জ্ঞানের অনেক বিষয়ও শিখছে তারা রাস্তার স্কুলে। মজার এ স্লেটে লিখতে প্রতিদিন সন্ধ্যায়ই রাস্তায় জড়ো হচ্ছে শিশুরা।

শৈলেন্দ্র বিহারিয়া নামের এক শিক্ষক জানান, এই রাস্তায় শিশুরা খেলাধূলা করতো। কেউ কেউ সাইকেল চালাতো। এই পরিস্থিতিতে তাদের খেলার জায়গাতেই পড়াশোনার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

স্থানীয় একটি বেসরকারি সংস্থার সদস্য মমতা গোহর বলেন, আমরা শিশুদের বিনামূল্যে সাদা এবং রঙিন চক দিয়েছি। এই অভিনব পদ্ধতিতে লেখাপড়া গোটা এলাকায় বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

সংশ্লিষ্টদের মতে, শিশুরা বাড়িতে বা কমিউনিটি ক্লাসে যাই শিখুক না কেন, তারা রাস্তায় সেটা লিখছে খেলাচ্ছলে। তবে এতে তাদের লেখার দক্ষতা উন্নত হচ্ছে। এছাড়াও, যখনই কোনো শিশু ওই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছে তখন রাস্তা লেখা বিষয়গুলো সে আবার রিভিশন করতে পারছে। তাদের ভাষায়, শিশুরাও এ পদ্ধতিটি পছন্দ করেছে।