আদালতের আদেশ অমান্য করে ১ হাজার ৮৬ জনকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে মালয়েশিয়া। তাদেরকে মিয়ানমারে ফেরত না পাঠানোর আবেদনও করেছিল বিভিন্ন মানবাধিবকার সংস্থা।  

মানবাধিকার সংস্থাগুলো বলছে, মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো এসব মানুষের মধ্যে কিছু সংখ্যালঘুও আছেন। যারা মিয়ানমারে সামরিক বাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন। খবর বিবিসির

তারা বলেছে, এসব নাগরিককে অভ্যুত্থানের মধ্যে থাকা মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো মানে তাদেরকে আরও বেশি ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া।

তবে মালয়েশিয়া বলেছে, যাদেরকে ফেরত পাঠানো হয়েছে, তারা অভিবাসন সংক্রান্ত অপরাধ করেছেন। তারা আশ্রয়প্রার্থী ছিলেন না।

মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালক খায়রুল দাযাইমি দাউদ বলেন, যাদেরকে ফেরত পাঠানো হয়েছে তারা স্বেচ্ছায় যেতে রাজি হয়েছিলেন। তাদেরকে জোর করে পাঠানো হয়নি। 

তিনি বলেন, ফেরত পাঠানো মিয়ানমারের নাগরিকদের মধ্যে কেউ ইউএনএইচসিআরের কার্ডধারী বা রোহিঙ্গা শরণার্থী ছিলেন না। 

তবে মালয়েশিয়া কর্তৃপক্ষ গত এক বছর ধরে সেখানকার অভিবাসন সেন্টারে ইউএনএইচসিআরের প্রবেশ বন্ধ করে রেখেছে। ফরে মালয়েশিয়ার অভিবাসন বিভাগের মহাপরিচালকের বক্তব্য নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। 

বিষয় : আদালত আদেশ

মন্তব্য করুন