যুক্তরাষ্ট্রের ক্যাপিটল হিলে গত ৬ জানুয়ারি দাঙ্গাকারীরা যুদ্ধের প্রস্তুতি নিয়ে আসে বলে জানিয়েছেন হামলার আগে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা।

ট্রাম্পপন্থী বিক্ষোভকারীদের ওই হামলার ঘটনায় অন্তত চার জন নিহত হয়। হামলার পর পদত্যাগ করেন নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা চারজন কর্মকর্তা। এদের মধ্যে তিনজন মঙ্গলবার হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ও গভর্নমেন্ট অ্যাফেয়ার্স (সেনেট) কমিটিতে সাক্ষ্য দেন। এ সময় তারা বলেন, ‌‘দাঙ্গাকারীরা অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিয়ে এসেছিলো’। খবর বিবিসি'র।

ক্যাপিটল পুলিশের সাবেক প্রধান স্টিভেন সান্ড বলেন, ‘ক্যাপিটল হিল থেকে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দূরে রাখার জন্য পাইপ বোমা রাখে দাঙ্গাকারীরা। তারা যখন সিকিউরিটি এরিয়ায় আসে, অন্য সাধারণ প্রতিবাদকারীদের মতো করে আসেনি। এটি আর কখনোই দেখিনি আমি।’

ক্যাপিটল পুলিশ ক্যাপ্টেন কারনেসা মেনডজা কমিটিতে বলেন, ‘আমার মুখে রাসায়নিক দ্রব্য ছুড়েছিলো হামলাকারীরা। যা থেকে এখনো আমি সেরে উঠিনি। এক সাথে এত কিছু হয়েছে যে আমার ১৯ বছরের ক্যারিয়ারে এটিই ছিলো সবচেয়ে ভয়াবহ।’

সাবেক সেনেট সার্জেন্ট অ্যাট আর্মস মাইকেল স্টেনজার বলেন, ‘আমরা সবাই একমত যে ওই হামলার আগে ইন্টেলিজেন্স সাপোর্ট পাওয়া যায়নি।’

এদিকে ওয়াশিংটন ডিসি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান রবার্ট কোন্তে বলেন, দাঙ্গাকারীদের দমনে পেন্টাগন থেকে ন্যাশনাল গার্ড ট্রুপস মোতায়েনে এত বেশি সময় লাগে যা তাকে বিস্মিত করেছে।