নিজের বিরুদ্ধে ওঠা ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অস্ট্রেলিয়ার অ্যাটর্নি জেনারেল ক্রিশ্চিয়ান পোর্টার। বুধবার এক বৈঠকে তিনি তার বিরুদ্ধে অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়ে বলেন, এরকম কোনো ঘটনাই কখনো ঘটেনি। 

অভিযোগের কারণে তিনি পদত্যাগ করবেন কি না জানতে চাইলে দৃঢ়ভাবে বলেন, ‘প্রশ্নই ওঠে না। তবে আপাতত ছুটি কাটাতে যাচ্ছি।’ খবর বিবিসির।

এক সংবাদ সম্মেলনে পোর্টার বলেন, ‘আমাকে ঘিরে যে সমস্ত অভিযোগ করা হয়েছে, এমন কোনো ঘটনা কখনো ঘটেনি। আমার প্রধানমন্ত্রী আমাকে পূর্ণ সমর্থন করেছেন। আমি আমার পদ থেকে সরে যাচ্ছি না। তবে দুই সপ্তাহের ছুটিতে যাচ্ছি।’

অ্যাটর্নি জেনারেলে পোর্টার বলেন, ‘যে কাজটা আমি করিইনি, তা নিয়ে কেন পদত্যাগ করব? তাহলে তো যে কারো যে কোনো অভিযোগের ভিত্তিতে যে কেউ চাকরি হারাতে পারে।’

এর আগে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পোর্টার ১৯৮৮ সালে ১৬ বছর বয়সী এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেন। এই অভিযোগ প্রকাশ্যে আসার পর অ্যাটর্নি জেনারেল ক্রিশ্চিয়ান পোর্টারের পদত্যাগের দাবি ওঠে। গত সপ্তাহে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনকে পাঠানো এক চিঠিতে এই দাবি জানানোর পর প্রধানমন্ত্রী সে দাবি প্রত্যাখ্যান করেন।

ঘটনার শিকার ওই নারী গত বছর নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশকে তার অভিযোগ জানান। তবে তিনি আনুষ্ঠানিক কোনো বিবৃতি দেননি। কিন্তু গত বছরই ওই নারী আত্মহত্যা করেন এবং এরপর পুলিশ তার অভিযোগের তদন্ত বন্ধ করে দেয়।

গত সপ্তাহে ওই নারীর বন্ধু দেশটির প্রধানমন্ত্রী এবং বিরোধী সংসদ সদস্যদের কাছে একটি অভিযোগ পাঠান। ফলে গত বছরের পর এটি চলতি বছরও উত্থাপিত হয়।