যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসিতে উগ্রবাদী হামলার হুমকির কারণে কংগ্রেসের অধিবেশন স্থগিত করা হয়েছে।

উগ্রবাদী মিলিশিয়ারা ক্যাপিটল হিলে আবার হামলা চালাতে পারে এমন গোয়েন্দা তথ্য আসার পর রাজধানীতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। খবর বিবিসির

কংগ্রেসে চলমান অধিবেশনে বৃহস্পতিবার প্রতিনিধি পরিষদে পুলিশ সংস্কার আইন নিয়ে বিতর্ক হওয়ার কথা ছিল। আর সিনেটে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রণোদনা প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে আইনপ্রণেতাদের জানানো হয়েছে, তাদের কাছে তথ্য রয়েছে, চিহ্নিত একটি মিলিশিয়া গোষ্ঠী হামলার পরিকল্পনা করছে।

কোনো ধরনের ঝুঁকি না নেওয়ার জন্য কংগ্রেসের অধিবেশন নিয়ে আগাম পরিকল্পনায় বদল করতে হয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

ক্যাপিটল পুলিশের ভারপ্রাপ্ত প্রধান ইয়োগান্ডা পিটম্যান গত সপ্তাহে কংগ্রেসের এক শুনানিতেও এমন হুমকির কথা জানিয়েছিলেন। হুমকি থাকায় ক্যাপিটল হিলের আশপাশের এলাকায় সাত ফুট উঁচু নিরাপত্তা দেয়াল বহাল রাখা রয়েছে। নিরাপত্তা দেয়ালের ওপর কাঁটাতার সেঁটে দেওয়া আছে। 

ক্যাপিটল পুলিশের দেওয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ক্যাপিটল ভবনে হামলার হুমকিকে গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে। এ নিয়ে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করা হচ্ছে।

গোয়েন্দারা হুমকির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো তথ্য বিবৃতিতে প্রকাশ করেনি। তবে গোয়েন্দা তথ্যকে গুরুত্ব দিয়ে আইনপ্রণেতাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে বলে ক্যাপিটল পুলিশ জানিয়েছে।

প্রতিনিধি পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সার্জেন্ট টিমোথি ব্লোডগেট জানিয়েছেন, আইনপ্রণেতাদের সম্ভাব্য নিরাপত্তা হুমকির বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। সম্ভাব্য প্রতিবাদ-সমাবেশের সঙ্গে প্রেসিডেন্টের ‘আসল’ শপথ গ্রহণের দিন বলে যে প্রচারণা রয়েছে, সে সম্পর্কেও আইনপ্রণেতাদের জানানো হয়েছে।

গত ৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উসকানিতে উগ্রবাদীরা ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায়। ওই হামলার ঘটনায় একজন পুলিশ কর্মকর্তাসহ মোট পাঁচজনের মৃত্যু হয়।

এ ঘটনার জের ধরে প্রতিনিধি পরিষদ ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাব গ্রহণ করে। সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠ আইনপ্রণেতারা ট্রাম্পের অভিশংসন দণ্ডের পক্ষে ভোট দেন। তবে দুই-তৃতীয়াংশ ভোট না পড়ায় ট্রাম্প দ্বিতীয়বারের মতো অভিশংসন দণ্ড থেকে রেহাই পেয়ে যান।