আর্থিক কেলঙ্কারিতে জর্জরিত মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে দেউলিয়া ঘোষণা করা হচ্ছে। ৪০ কোটি ডলারের বেশি ট্যাক্স দিতে না পারায় ব্যাংক তার বিরুদ্ধে এ পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে। ব্যাংক যদি তাকে দেউলিয়া ঘোষণা করে, তাহলে তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যেতে পারে। খবর এনডিটিভির

নাজিব রাজাক ২০১৮ সালে ক্ষমতাচ্যুত হন। প্রায় ৬০ বছর ধরে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এই দেশটিকে শাসন করা তার দল নির্বাচনে হেরে গেলে তাকে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে হয়। দলের পরাজয়ের কারণ হিসেবে তার আর্থিক দুর্নীতিকে দায়ী করা হয়।

রাষ্ট্রীয় বিনিয়োগ তহবিল আইএমডিবি থেকে কোটি কোটি ডলার সরিয়ে নেওয়ার অভিযোগে নাজিব রাজাকের বিরুদ্ধে জালিয়াতির মামলা দায়ের করা হয়। কয়েকটি মামলার মধ্যে প্রথম মামলায় তাকে ১২ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়। নাজিব রাজাক অবশ্য এখন জামিনে মুক্ত রয়েছেন এবং এমপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

গত বছর একটি আদালত নাজিবকে ২০১১ থেকে ২০১৩ সালের কর হিসেবে ৪০ কোটি ডলার পরিশোধ করার নির্দেশ দেয়। তবে রাজাক কর পরিশোধে ব্যর্থতার পরিচয় দেন। মঙ্গলবার নাজিব বলেন, এই অর্থ পরিশোধে সক্ষম না হলে ব্যাংক কর্মকর্তারার তাকে দেউলিয়া হিসেবে ঘোষণা করার কাগজপত্র তৈরি করতে শুরু করবেন।

নাজিবকে দেউলিয়া ঘোষণা করা হলে তিনি বর্তমানের নিজের পদটি হারাবেন এবং আগামী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার সুযোগও পাবেন না।

৬৭ বছর বয়সী নাজিব তার বিরদ্ধে আনীত মামলাকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, তিনি সবসময় কর পরিশোধ করে এসেছেন।

নিজের ফেসবুক পোস্টে তিনি লিখেছেন, এখন যারা ক্ষমতায় আছেন, তারা আমাকে নানা হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন। তবে আমি এসব পরোয়া করি না। আমি তাদের অপপ্রয়াসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াব।

আইএমডিবি কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকা সত্ত্বেও নাজিব এখনও ৪০ লাখেরও বেশি ফেসবুক ফলোয়ারসহ একজন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব।

মন্তব্য করুন