করোনাভাইরাস মহামারির কারণে এবারও বিদেশিদের হজে যাওয়া বন্ধ রাখার বিষয়ে ভাবছে সৌদি আরব। সারাবিশ্বে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু বাড়ায় এবং করোনায় নতুন অনেক ভেরিয়েন্ট আসায় দেশটি এ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। 

এতে বলা হয়, বিদেশিদের হজে যাওয়ার ওপর সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে এখনো এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত হলে গত বছরের মতো এবারও মক্কায় হজে মুসল্লিদের উপস্থিতি সীমিত হবে। সূত্র জানায়, বিদেশিদের হজের সুযোগ দেওয়ার আগের পরিকল্পনা স্থগিত করা হয়েছে। সৌদি নাগরিকদের মধ্যে যারা টিকা নিয়েছেন এবং ছয় মাস আগে করোনামুক্ত হয়েছেন, শুধু তাদের হজের সুযোগ দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে বেঁধে দেওয়া হবে বয়সসীমাও।

অপর একটি সূত্র বলছে, টিকা নেওয়া কিছুসংখ্যক বিদেশিদের হজের সুযোগ দেওয়ার কথা প্রাথমিকভাবে ভাবা হয়েছিল। কিন্তু কে কোন টিকা নিয়েছেন তা নিয়ে বিভ্রান্তি, টিকার কার্যকারিতা ও করোনার নতুন ধরন নিয়ে উদ্বেগের কারণে সৌদি কর্তৃপক্ষ তাদের পরিকল্পনা থেকে সরে এসেছে। এ বিষয়ে সৌদি আরবের সরকারি ভাষ্য পাওয়া যায়নি বলে রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

গত ফেব্রুয়ারি মাসে ২০টি দেশের নাগরিকদের সৌদি আরবে প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়। এখনও বহাল থাকা ওই নিষেধাজ্ঞায় কূটনীতিক, সৌদি নাগরিক, চিকিৎসক ও তাদের পরিবারের ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হয়। এ তালিকায় রয়েছে- সংযুক্ত আরব আমিরাত, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ আফ্রিকা, ফ্রান্স, মিসর, লেবানন, ভারত ও পাকিস্তান।

বিষয় : সৌদি আরব হজ

মন্তব্য করুন