রাস্তার ধারে সারি সারি কমলা লেবুর গাছ। সেসব গাছের নিচে চাদর বা কার্ডবোর্ড পেতে বানানো হয়েছে শয্যা। সেখানেই শুয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিরা। তাদের অনেকেরই স্যালাইন চলছে। আর সেই বোতল ঝোলানো হয়েছে গাছের ডালে। এভাবেই করোনা রোগীর চিকিৎসা চলছে ভারতের মধ্যপ্রদেশের আগর–মালওয়া জেলার এক গ্রামে। সেই ঘটনার একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই শিউরে উঠেছেন মানুষ। 

আজকাল জানিয়েছে, মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে ধানিয়াখেড়ি গ্রাম। সেই গ্রামের পাশ দিয়ে যাওয়া মহাসড়ক থেকে ২০০ মিটার দূরে কমলা বাগানে চলছে এই হাসপাতাল। আশপাশের ১০টি গ্রাম থেকে করোনায় আক্রান্তরা এখানেই চিকিৎসা করাতে আসছেন। কারও মুখে মাস্ক নেই। সামাজিক দূরত্ববিধিও শিকেয় উঠেছে। আর তাদের চিকিৎসা করছেন স্থানীয় হাতুরে চিকিৎসকরা।

করোনায় আক্রান্তরা কেন সরকারি হাসপাতালে যাচ্ছেন না? এমন প্রশ্নে‌ গ্রামবাসীর জবাব, ভয়। হাসপাতালে প্রতিদিন বহু রোগী মারা যাচ্ছেন। 

এদিকে জেলার চিফ মেডিকেল অফিসার সমান্দার সিং মালভিয়া খবর পেয়েই সেখানে একটি দল পাঠিয়েছেন। তবে তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকেই পাননি। শুধু ওষুধের কিছু খালি বোতল পাওয়া গেছে।

চিফ মেডিকেল অফিসার সমান্দার সিং মালভিয়া জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে এফআইআর হবে। 

ব্লক মেডিকেল অফিসার মণীশ কুরিল গ্রামবাসীর প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেছেন, ‘এভাবে চিকিৎসা না নিয়ে, ‌সর্দি-কাশি হলে সরকারি হাসপাতালে যোগাযোগ করুন’‌।

মন্তব্য করুন