জেরুজালেমে দ্বিতীয় রাতের মতো ফিলিস্তিনিদের সঙ্গে ইসরায়েলি পুলিশের সংঘর্ষ চলছে। এতে এ পর্যন্ত অনেক মানুষ আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। জেরুজালেমের দামেস্ক গেটে শনিবারের সংঘর্ষ শুরু হয়, যখন পবিত্র রাত লাইলাতুল কদর উপলক্ষে হাজার হাজার মুসলমান আল-আকসা মসজিদে নামাজ আদায় করছিলেন।

ফিলিস্তিনিরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুঁড়েছে এবং পুরনো শহরের দামেস্ক গেটের কাছে আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছেন। পুলিশ কর্মকর্তারা স্টান গ্রেনেড এবং জল কামান ব্যবহার করেছেন। মসজিদ অভিমুখে নামাজীদের নিয়ে যাওয়া অনেক বাস আটকে দেয় ইসরায়েলি পুলিশ। খবর বিবিসির

ফিলিস্তিনি রেড ক্রিসেন্ট জানিয়েছে, সংঘর্ষে অন্তত ৮০ জন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে ১৪ জনকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ইসরায়েলি পুলিশ জানিয়েছে, অন্তত একজন পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

ইসরায়েলি বসতি স্থাপনের জন্য পূর্ব জেরুজালেমের বাড়িঘর থেকে ফিলিস্তিনিদের উচ্ছেদ করার পরিকল্পনা থেকে সেখানে বেশ কয়েকদিন ধরে উত্তেজনা চলছে। তারই ধারাবাহিকতায় দ্বিতীয়দিনের মতো এ সহিংসতা।

এর আগে শুক্রবার রাতে আল-আকসা মসজিদের কাছে সহিংসতায় দুইশজনের বেশি ফিলিস্তিনি এবং অন্তত ১৭ জন ইসরায়েলি পুলিশ আহত হন বলে স্বাস্থ্যকর্মী এবং পুলিশ জানিয়েছে।

রয়টার্সকে ২৭ বছরের মাহমুদ আল-মারবুয়া বলেন, ‘তারা আমাদের নামাজ পড়তে দিতে চায় না। সেখানে প্রতিদিনই লড়াই করতে হচ্ছে, প্রতিদিনই সহিংসতা হচ্ছে। প্রতিদিনই সেখানে সমস্যার তৈরি হচ্ছে।’

এ বিষয়ে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, সবার প্রার্থনা করার অধিকার রক্ষার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্ব পালন করছে তার দেশ।

তবে একে ইসরায়েলের ‘পাপীদের আক্রমণ’ বলে অভিহিত করেছেন ফিলিস্তিনি প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

মন্তব্য করুন